(দিনাজপুর২৪.কম) “ভিটামিন এ খাওয়ান, শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমান”-এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ৫ আগস্ট শনিবার সিভিল সার্জন কার্যালয় আয়োজিত ও জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পুষ্টি সেবা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় দিনাজপুর সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নে চেরাডাঙ্গী উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে একটি শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাইয়ে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ডেপুটি ডাইরেক্ট পার্ট-২ ডাঃ আহাদ আলী, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ডাঃ আবু নছর নুরুল ইসলাম চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মওলা বক্্স চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডাঃ এমদাদুল হক ও আউলিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক।
প্রধান অতিথি জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম বলেন আমাদের প্রজন্মরা সুস্থ থাকলে আগামীতে দেশ ও জাতির উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। তাই তাদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন কর্মসূচী বাস্তবায়নে করে যাচ্ছেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ডেপুটি ডাইরেক্ট পার্ট-২ ডাঃ আহাদ আলী বলেন মায়ের দুধের পাশাপাশি সুষম খাদ্য শিশুকে দিতে হবে। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ালে রাত কানা রোগের প্রাদুর্ভাব ১ শতাংশ নিচে কমিয়ে আসবে। সিভিল সার্জন ডাঃ মওলা বক্্স চৌধুরী বলেন এবার দিনাজপুর জেলায় ৩ লাখ ২৬ হাজার ১শ’ চল্লিশ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৩৫২৮৬জন, ১২-৫৯ মাস বয়স বয়সী শিশুর সংখ্যা ২৯০৮৫৪ জন। কেন্দ্রের সংখ্যা করা হয়েছে স্থায়ী কেন্দ্র ১৮টি, অস্থায়ী কেন্দ্র ২৫৯৪টি, অতিরিক্ত কেন্দ্র (উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়) ১৪১টি। জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনকে স্বার্থক করতে স্বাস্থ্য বিভাগের মাঠ কর্মী (এইচএ) ৩৪৯জন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠ কর্মী (এফ ডাব্লিউ এ) ৩৫০ জন, স্বেচ্ছাসেবী (ভলেন্টিয়ার) ৪৮০৭ জন। এদের তদারকি করার জন্য স্বাস্থ্য পরিদর্শক ১৫ জন, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ৭০ জন, এফপিআই ৯৪ জন, এসএসিএমও (স্বাস্থ্য) ১১০ জন, এসসিএমও (পঃপঃ) ৫৪ জন ও এফডাব্লিউ ৯০ জনকে নিযুক্ত করা হয়েছে।