songorso-dinajpur24মাহবুবুল হক খান (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর শহরে স্কুল-কলেজগামী মেয়েদের ফটো তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৭/৮ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে উভয় গ্রুপের দু’জনকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুর ১টার দিকে ঘাষিপাড়া ডাবগাছ মসজিদের সামনে এ সংঘটর্ষের ঘটনা ঘটে।
হামিদুর রহমান আদর্শ পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক জুবিয়ার রহমান ও সদস্য রাকু অভিযোগ করে জানান, কয়েকজন বখাটে যুবক বুধবার দুপুরে ঘাসিপাড়া ডাবগাছ মসজিদের সামনে অবস্থিত হামিদুর রহমান পাঠাগার মোড়ে দাড়িয়ে ক্যামেরা দিয়ে স্কুল-কলেজ পড়–য়া মেয়েদের ফটো তুলছিল। এ সময় পাঠাগারের সদস্যরা বাধার সৃষ্টি করলে বখাটে যুবকরা ক্ষিপ্ত হয়ে চলে যায়। কিছুক্ষনের মধ্যে বখাটে যুবকরা সংঘটিত হয়ে রাম দা, সামুরাই, কুড়ালসহ বিভিন্ন দেশীয় ধারালো অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে পাঠাগার, আনোয়ার ঠিকাদার ও জুবিয়ারের বসতবাড়ীতে হামলা চালায়। জুবিয়ার রহমান আরো অভিযোগ করেন, হামলাকারীরা পাঠাগারে প্রবেশ করে পাঠাগারের চেয়ার-টেবিলসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর ও তছনছ করে।
এলাকাবাসি পাল্টা আক্রমন করলে দুই গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষ শুরু হয়। খবর পেয়ে কোতয়ালী থানার এসআই বিপ্লব কুমারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছঁলে বখাটে যুবকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে। পুলিশ ধাওয়া দিলে বখাটে যুবকরা পালিয়ে যায় ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ সময় উভয় গ্রুপের সুজন, জুবিয়ার, মতিয়ারসহ ৭/৮ জন আহত হয়।
এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল। ঘাসিপাড়া ডাবগাছ মসজিদ মোড়, চাউলিয়াপট্টি মোড়সহ কয়েকটি এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।