স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কমে) খাবার দেন- না হলে গুলি করেন এমন মর্মান্তিক বক্তব্য দিনাজপুরে করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র পরিবারের মানুষদের। সোমবার পরিবারে খাবার সরবরাহের দাবিতে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়ক এবং আভ্যন্তরিন সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভকালে স্থানীয় আদিবাসী পল্লীর বাসিন্দারা এ ধরনের বক্তব্য দেন।

এর আগে সকালে চাঁদগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের সামনে আভ্যন্তরিন সড়কে গাছ কেটে আলাদাভাবে অবস্থান নেয় স্থানীয় দরিদ্র পরিবারের বয়োবৃদ্ধসহ নারী-পুরুষ এবং শিশুরা।  খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে কোতয়ালী পুলিশ এবং সেনা সদস্যরা। এসময় অবরোধ তুলে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে পৃথকভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে তারা।  করোনার বিস্তার রোধে ২৬ মার্চ থেকে দিনাজপুরে বন্ধ করে দেওয়া হয় গণপরিবহনসহ সব ধরনের কর্মক্ষেত্র। এতে দীর্ঘ সময় ধরে ঘরে বসে অলস সময় কাটানোর ফলে আর্থিক অনটনে খাদ্য সংকটে পড়েছে বিভিন্ন পেশায় জড়িত শ্রমজীবিরা। এতে পরিবারের সদস্যদের মুখে তিন বেলা খাবার তুলে দিতে পারছেন না বাড়ীর কর্তারা। তাদের ঘরে সরকারি-বেসরকারিভাবে খাদ্য এবং ত্রান সহায়তা পৌছেনি বলে অভিযোগ করেছেন তারা।  দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাগফুরুল হাসান আব্বাসী দিনাজপুুু২৪.কমকেরর জানান, তালিকা তৈরি করে বঞ্চিত পরিবারগুলোকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে।