মাহবুবুল হক খান (দিনাজপুর২৪.কম)  দিনাজপুর সদর উপজেলায় মৃত এক ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষায় করোনা উপসর্গ পাওয়া গেছে। মৃত ব্যক্তির নাম সঞ্চয় দেব (২৯)। সে সদর উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা। এর মধ্য দিয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় এই প্রথম কোন করোনা রোগি মৃত্যু হলো। তবে আক্রান্তের সংখ্যা পূর্বের ২১ জনই আছে।
দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস সোমবার (৪ মে) সাড়ে ৭টায় সিভিল সার্জনের ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে মৃত ব্যক্তির শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেন। মৃত ব্যক্তির নাম সঞ্চয় দেব (২৯)। সে সদর উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা।
সিভিল সার্জন জানান, সোমবার দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের টিআর পিসিআর ল্যাব হতে ২৩টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মৃত একজনের নমুনায় পজিটিভ ও অপর একজনের নমুনায় (ফলোআপ) পজিটিভ পাওয়া গেছে। বাকী ২১টি নমুনার ফলাফলে নেগেটিভ পাওয়া গেছে। এছাড়া সোমবার দিনাজপুর জেলায় নমুনার পরীক্ষার জন্য ৫২টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবেরটরীতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
দিনাজপুর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আরজ উল্লাহ জানান, চলতি মে মাসের ১ তারিখ বিকেলে নিজ বাড়ীতে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আজ সোমবার (৪ মে) নমুনা পরীক্ষার প্রাপ্ত ফলাফলে তার নমুনায় করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়। তিনি জানান, সে একজন শ্রমিক। স্থানীয় একটি ইট ভাটায় কাজ করতো। তবে কিভাবে সে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে আমরা এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি। তার খোঁজ খবর নেয়ার পর আরো বিস্তারিত তথ্য জানানো যাবে বলে জানান তিনি।
উল্লেখ্য, দিনাজপুরে গত ১৫ এপ্রিল মঙ্গলবার প্রথম ৭ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়। এর পরের দিন ১৬ এপ্রিল বুধবার একজন, ১৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার একজন, ১৮ এপ্রিল শুক্রবার একজন, ২০ এপ্রিল রবিবার একজন, ২১ এপ্রিল মঙ্গলবার দুইজন, ২৫ এপ্রিল শনিবার একজন, ২৭ এপ্রিল সোমবার হাকিমপুরে একজন, ২৯ এপ্রিল বুধবার ঘোড়াঘাটে একজন, ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার হাকিমপুর উপজেলায় একজন, ২ মে শনিবার কাহারোলে আরো ৩ জন এবং সর্বশেষ পার্বতীপুরে নতুন আরো একজন করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়। এ নিয়ে জেলার ১৩টি উজেলার মধ্যে ৮টি উপজেলায় ২১ জন করোনা রোগি শনাক্ত হলো। এর মধ্যে ১৮ জন পুরুষ, দুইজন মহিলা ও একজন শিশু। আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৭ জন (একজন মৃত), নবাবগঞ্জে ৩ জন, ফুলবাড়ীতে একজন, পার্বতীপুরে দুইজন, বোচাগঞ্জে একজন, ঘোড়াঘাটে দুইজন, কাহারোলে ৪ জন এবং হাকিমপুর উপজেলায় দুইজন।