হাবিব ইফতেখার, পার্বতীপুর (দিনাজপুর২৪.কম)  মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাত করা দায়ে অভিযুক্ত দিনাজপুরের পার্বতীপুর আইনুলহুদা ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ বিপাকে পড়েছেন।  সরজমিনে তদন্ত সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুরের পার্বতীপুর আইনুলহুদা ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম ও অফিস সহকারী আজিবর রহমানের মাধ্যমে প্রতিবছর বিভিন্ন খরচের অজুহাত দেখিয়ে উপবৃত্তির টাকা বিতরণের পূর্বে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ১ হাজার টাকা করে আদায় করেন। তেমনি প্রতিবারের ন্যায় এবারও ১৩ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে জনপ্রতি ১হাজার টাকা হাতড়িয়ে নেওয়ার ঘটনাটি ফাঁস হওয়াতে অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম দ্বারে দ্বারে গিয়ে বিভিন্ন মহলকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে মুখ বন্ধ করার পায়েতার চলছে।
এ ব্যাপারে ওই মাদ্রাসার ৩য় বর্ষের ছাত্রী লাকী বানু, আসমাউল হোসনা ও নুরজাহান বেগম আরো অনেকে প্রতিকার চেয়ে দিনাজপুর জেলা শিক্ষা অফিসারের বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।
পরর্বতীতে অধ্যক্ষ ও অফিস সহকারী ছাত্রীদের মাদ্রাসায় ডেকে এনে হুমকি দিয়ে সাদা কাগজে প্রত্যেকের কাছ থেকে স্বাক্ষর নেয়।
এব্যপারে অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ কালে তিনি মাদ্রাসা থেকে সটকে পড়েন। পরে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি অফিসের কাজে বাহিরে আছেন, পরে কথা হবে। অফিস সহকারী আজিবর রহমানের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি প্রতিনিধির জবাব এড়িয়ে জোড় করতে থাকে চা বিস্কিট খাওয়ার জন্য অনুরোধ করে এবং পরে গোপনে দেখা করতে চায়।

সূত্র ধরে প্রতিনিধি মাদ্রাসার দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আফছার আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন- বিষয়টি জেনেছি। তারা দীর্ঘ দিন ধরে এই অপকর্মের সাথে লিপ্ত। আগামী গর্ভনিং বডির মিটিং-এ উত্থাপন করা হবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রতিনিধি এক স্বাক্ষাৎকারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার সমসের আলী মন্ডল বলেন- আমাদের কাছে অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম ও অফিস সহকারী আজিবর রহমানের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এসেছে। আমরা ছাত্র-ছাত্রীদেরকে যখন টাকা দেই তখন বলেছিলাম তোমাদের কাছে কেউ টাকা দাবী করলে কখনই টাকা দিবেনা। কিন্তু পরর্বতী সময়ে জানতে পারি আইনুল হুদা ফাজিল মাদ্রাসার কতিপয় ছাত্রীর কাছ থেকে ২দিন পূর্বে ১ হাজার টাকা করে নেওয়া হয়। এই অভিযোগ পাওয়া মাত্রই আমরা প্রত্যেক ছাত্রীদের বাসায় গিয়ে তা সত্যতা যাচাই করছি। তদন্ত প্রায় শেষের দিকে।

প্রতিনিধির প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন- অধ্যক্ষ সাহেব ছাত্রীদের কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছেন এই আভাস পেয়েছি।
তিনি আরে বলেন-অধ্যক্ষ রিয়াজুল ইসলাম অফিস সহকারী আজিবর রহমানের কাছে আমরা জবার চেয়েছি, তদন্তে প্রমাণিত হলে আমরা আইনানু ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পার্বতীপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা দপ্তর সূত্র মতে, আইনুলহুদা ফাজিল মাদ্রাসার ১৩ জন ছাত্র-ছাত্রীদের জনপ্রতি উপবৃত্তির পরিমাণ ৪ হাজার ৯শত টাকা। অভিযোগে জানা যায় গত ২৬ এপ্রিল আদর্শ ডিগ্রী কলেজে পার্বতীপুর নতুন বাজার অগ্রণী ব্যাংকের অফিসারের মাধ্যমে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শমসের আলী মন্ডল এ উপবৃত্তির টাকা ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে দেন। এ সময় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। –(ডেস্ক)