মো. নুরুন্নবী বাবু (দিনাজপুর২৪.কম)  দিনাজপুরে সোমবার মহাসড়কে ইজিবাইক, ভটভটি ও নছিমন-করিমন চলাচলের দাবীতে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ১২ ঘন্টার ধর্মঘট পালন করেছে। মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে।  মহাসড়কে ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক, ভটভটি, নছিমন-করিমনসহ অযান্ত্রিক যান চলাচলের দাবীতে সোমবার দিনাজপুরে বাংলাদেশ অটো বাইক শ্রমিক কল্যান সোসাইটি এবং জেলা ভটভটি মালিক-শ্রমিক ঐক্যপরিষদের উদ্যোগে সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘন্টার ধর্মঘট পালিত হয়। সকাল ১০টায় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল করে শ্রমিক কল্যান সোসাইটির সভাপতি আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুজন ও কোষাধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি হস্তান্ত করেন। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় দিনাজপুরে প্রায় ৭ হাজার ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন মালিক ও চালকেরা। প্রকট বেকার সমস্যার সমাধানের জন্যই এই পেশা বেছে নেয়া হয়েছে। জামায়াত-শিবিরের ধ্বংসাত্মক ও নাশকতামূলক কর্মকান্ড উপেক্ষা করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ইজি বাইক মালিক ও চালকেরা জনগণের সুবিধার্থে তাদের বাহন চালু রেখেছিলেন। তাই লক্ষ লক্ষ মালিক-শ্রমিক পরিবারকে বাঁচানোর জন্য অবিলম্বে দিনাজপুরের দশ মাইল হতে কাউগাঁ মোড় পর্যন্ত মহাসড়কে ইজিবাইকসহ হালকা যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেয়ার দাবী জানানো হয়।
পরে দিনাজপুর জেলা ভটভটি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে সংগঠনের সভাপতি সাকিল হাসান সোহেল ও সা. সম্পাদক মুসফিকুর রহমান বাবুর নেতৃত্বে একই দাবীতে জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম এবং জেলা পরিষদের প্রশাসক আজিজুল ইমাম চৌধুরীর নিকট অনুরূপ স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। এসময় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন মুন্না, জেলা অটো রিক্সা শ্রমিকলীগের সভাপতি আইয়াজ নবী জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ইজিবাইক, নছিমন-করিমনসহ হালকা যানবাহনের ধর্মঘটের ফলে সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। এই সুযোগে রিক্সা চালকেরা যাত্রীদের কাছে আদায় করেন কয়েকগুন বেশি ভাড়া। এই নিয়ে অনেক জায়গায় রিক্সা চালকদের সাথে যাত্রীদের বচসা হয়।