মোঃ আবু সাঈদ (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের বিরামপুর ইউনিয়ন নির্বাচনী প্রচারনার সময় আওয়ামী-লীগ মনোনিত প্রার্থীর কর্মী এবং বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং বিদ্রোহী প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করেছে।  গত ২৯ মার্চ মঙ্গলবার রাত ৮টা সময় উপজেলার কাটলা ইউনিয়নে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আওয়মী-লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবং বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সামছুল আলমের নির্বচানী কর্মী সুলতান মাহমুদ জানান, নির্বাচনী প্রচারনা চালানোর সময় আওয়ামী-লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মীরা লাঠি শোঠা নিয়ে এসে প্রথমে মাইকটি ভেঙ্গে ফেলে। এর পর তারা সামছুল আলমের নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করে। আওয়ামী-লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় সামছুল আলমের কয়েক জন কর্মী আহত হয়েছে এবং সামছুল আলম পালিয়ে বাঁচেন বলে সুলতান মাহমুদ জানান।
আওয়ামী-লীগ মনোনীত প্রার্থী ইউনুস আলী অভিযোগ করে বলেন, গতকাল সন্ধ্যার নির্ধারিত নির্বচনী পথ সভায় আসার সময় (বিদ্রোহী) সমছুল আলমের নির্বাচনী কার্যালয়ের সামনে আসলে তার কর্মীরা আওয়মী-লীগ প্রর্থীর নেতাকর্মীদের উপর হামলা করে। সামছুল আলমের নির্বাচনী কার্যালয় তারই লোকজন ভেঙ্গে আওয়ামী-লীগ নেতা কর্মীদের উপর মিথ্যে দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে ।
এবিষয়ে কাটলা বাজারে স্থানীয় বাসিন্দা মোজাহার, দলিল উদ্দিন, আব্দুল জোব্বার জানান, সংঘর্ষে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এতে বাজারের লোকজনের মধ্যে চরম আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আমিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঘটনার পরপরই পুলিশ র‌্যাব ও বিজিবির কয়েকটি দল ঘটনাস্থলে যায়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে তিনি জানান।