মোঃ আফজাল হোসেন (দিনাজপুর২৪.কম) ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউপির দাদুল গ্রামে জমিজমার বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় সুলতান মাহামুদ (৪০) গুরুতর আহত হন। ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউপির দাদুল গ্রামের মোঃ সুলতান মাহামুদ এর পুত্র মোঃ সারোয়ার হোসেন (২২) এর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১০/০৭/২০২০ ইং তারিখে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় পূর্ব সত্রুতার জের ধরে সারোয়ার হোসেন এর পিতা সুলতান মাহামুদ আটপুকুর বাজারের উদ্দ্যেশে তালতলা কবর স্থান নামক স্থানে আসা মাত্র মোঃ কুদ্দুস এর পুত্র মোঃ মুকুল আজাদ (চায়না) (২২), মোঃ শরিফ উদ্দীনের পুত্র মোঃ সুমন (২০) সর্ব সাং কাজিহাল দাদুল, পিতা অজ্ঞাত মোঃ মইনুল (২২) গ্রাম হরগবিন্দপুর, খবির উদ্দীন এর পুত্র মোঃ শহির (৫০), মোঃ বাবুল এর পুত্র মোঃ নুরুন্নবি (২২), মৃত ইসমাইল এর পুত্র মোঃ আব্দুল কুদ্দুস (৪৫) গ্রাম কাজিহাল দাদুল, পিতা অজ্ঞাত মোঃ ইমন (২৪) সাং-মিরপুর, মোঃ মনজুরুল এর স্ত্রী মোছাঃ লাভলী (৩০), পিতা অজ্ঞাত মোঃ মনজুরুল (২৯), মোঃ কুদ্দুস এর স্ত্রী মোছাঃ শিল্পী (৩৫) ও মেয়ে মোছাঃ আইরিন পারভীন (২৩) সাং কাজিহাল দাদুল।
তারা দলবদ্ধ হয়ে লাঠিশোটা নিয়ে মোঃ মুকুল আজাদ (চায়না) ও শহির এর হুকুমে সুলতান মাহামুদ কে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করলে গুরুতর আহত হন। এ সময় সুলতান মাহামুদ বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে ঐ দিনে ফুলবাড়ী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন। বর্তমানে তিনি ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য প.প. কমপ্লেক্স এ চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। এই ঘটনায় সুলতান মাহামুদ এর পুত্র মোঃ সারোয়ার হোসেন জানান, পূর্বে জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়ে প্রতিপ্েক্ষর সাথে বিরোধ ছিল। এ কারণে আমার বাবাকে তারা একা পেয়ে এই মারপিট করেন। এ বিষয়ে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফখরুল ইসলাম এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, প্রতিপক্ষরা অভিযোগ দিয়েছে, তারাও অভিযোগ দেখ। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।