(দিনাজপুর২৪.কম) একেই বলে ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’৷ করোনা সঙ্কটের মধ্য সৌদি আরব ও রাশিয়ার মধ্যে সঙ্ঘাতকে কেন্দ্র করে পেট্রোলিয়ামের মূল্য নাটকীয়ভাবে কমে গেছে৷ ফলে পুঁজিবাজারও অস্থির হয়ে উঠছে৷

বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসের লাগামহীন থাবার মুখে সোমবার পেট্রোলিয়ামের দাম অস্বাভাবিক হারে কমে গেছে৷ সৌদি আরব আচমকা তেলের দাম কমিয়ে এপ্রিল মাসে নাটকীয়ভাবে উৎপাদন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়ায় এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে৷ সৌদি আরবের ও রাশিয়ার মধ্যে পেট্রোলিয়ামের মূল্য নিয়ে সংঘাতের জের ধরেই রিয়াদ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তেলের দাম প্রায় ৩০ শতাংশ কমে যাওয়ায় সোমবার সকাল থেকেই বিশ্বজুড়ে পুঁজিবাজারেও ধস নামছে৷

করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়ে সঙ্কটের প্রেক্ষাপটে পেট্রোলিয়াম উৎপাদনকারী দেশগুলোর গোষ্ঠী ওপেক উৎপাদন কমিয়ে বাজারে মূল্য স্থিতিশীল করার প্রস্তাব দিয়েছিল৷ কিন্তু রাশিয়া সেই প্রস্তাব মানতে নারাজ হওয়ায় সৌদি আরব সে দেশকে ‘শিক্ষা দিতে’ এমন নাটকীয় সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ কিন্তু এমন সংঘাতের পরিণতি হচ্ছে মারাত্মক৷ অ্যামেরিকা থেকে শুরু করে বিশ্বের অনেক তেলের কোম্পানি লোকসানের মুখে সঙ্কটে পড়েছে৷ সেইসঙ্গে ওপেক ও অন্যান্য তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর মধ্যে সহযোগিতা ও সমন্বয়ের ভবিষ্যৎ পুরোপুরি অনিশ্চিত হয়ে উঠেছে৷ এমন অরাজকতা পুঁজিবাজারের জন্য সার্বিকভাবে মারাত্মক বার্তা বহন করছে৷

করোনা ভাইরাসের কারণে পেট্রোলিয়ামের বাজার এমনিতেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে৷ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তি চীনে চাহিদা কমে যাওয়ায় সংকট শুরু হয়েছিল৷ তারপর একের পর এক দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় অর্থনৈতিক কার্যকলাপ কমে চলেছে৷ ফলে তেলের চাহিদাও কমছে৷ চলতি বছরে পরিস্থিতির উন্নতিরও কোনো সম্ভাবনা দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা৷

মুদ্রাবাজারের উপরেও করোনা ভাইরাস ও পেট্রোলিয়ামের মূল্যহ্রাসের প্রভাব দেখা যাচ্ছে৷ মার্কিন ডলারের বিনিময়মূল্য জাপানের ইয়েনের তুলনায় আচমকা কমে গেছে৷ বিশ্বের অনেক শিল্পোন্নত দেশে করোনা ভাইরাসের জের ধরে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ কমে চলায় সার্বিকভাবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে লোকসান ও সংকটের আশঙ্কা বেড়ে চলেছে৷ আপাতত করোনা মোকাবিলা নিয়ে সবাই ব্যস্ত থাকলেও নেপথ্যের এই অর্থনৈতিক সংকট বিশ্বজুড়ে মানুষের জীবনযাত্রার উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে, সে বিষয়ে আর তেমন কোনো সন্দেহ নেই৷ বিভিন্ন দেশের সরকার ও ব্যাংক পরিস্থিতি সামলাতে প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা চলছে৷ তবে সেই সব উদ্যোগ ক্ষতির মাত্রা কতটা সামাল দিতে পারবে, সে বিষয়ে সংশয় থেকে যাচ্ছে৷
সূত্র : ডয়চে ভেলে