(দিনাজপুর২৪.কম) যৌন হয়রানির অভিযোগে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে তালা লাগিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। সোমবার বেলা ১০টায় বহরবুনিয়া ইউনিয়নের তোরাব মেমোরিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে অভিযুক্ত শরীরচর্চা বিষয়ক শিক্ষক মো. আলামীন হাওলাদারকে পাঠদান থেকে বিরত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষকসহ ওই শিক্ষককে ডেকে পাঠিয়েছেন।

জানা গেছে, বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ৩ ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে যৌন হয়রানি করে আসছেন শিক্ষক আলামীন হাওলাদার। ঘষিয়াখালী গ্রামের নিজ বাড়ির সামনে কোচিং সেন্টারে ইংরেজি বিষয়ে প্রাইভেট পড়ানোর সুযোগে তিনি বিভিন্ন সময় তাদেরকে যৌন হয়রানি করেন। ওই ৩ ছাত্রী গত ১০ মার্চ লিখিত অভিযোগে ঘটনাটি প্রধান শিক্ষককে অবহিত করেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক অজ্ঞাত কারণে ওই সময় কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। পর্যায়ক্রমে বিষয়টি সকল ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে জানাজানি হয়ে গেলে আজ তারা বিচারের দাবিতে শ্রেণি কক্ষে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করেন।

এ সম্পর্কে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দিগেন্দ্রনাথ হালদার বলেন, ছাত্রীদের অভিযোগ পেয়েছি। বিপিএড শিক্ষক আলামীন হাওলাদারকে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান থেকে আপাতত প্রত্যাহার করা হয়েছে। একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে। কমিটি ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হানান বলেন, বিষয়টি নিয়ে আজ সোমবার বিকেলে নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে জরুরি সভা ডাকা হয়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে অভিযুক্ত শিক্ষক আলামীন হাওলাদার এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের গ্রুপিংয়ের কারণে তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। -ডেস্ক