(দিনাজপুর ২৪.কম) মেয়েকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় জেলার তাড়াশে এক মাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত খুশি বেগম (৪৫) উপজেলার ভাটরা গ্রামের কামরুল ইসলামের স্ত্রী। গতকাল দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।গ্রামবাসী জানায়, কামরুল-খুশি দম্পতির মেয়ে আমিনা খাতুনকে তিনবছর আগে বিয়ে দেয়; কিন্তু মেয়ে আমিনা বাবার বাড়িতে এলেই প্রতিবেশী হানিফ তাকে নানা ভাবে উত্ত্যক্ত করত। এ নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। গতকাল গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণের কিস্তির টাকা জমা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে খুশিকে একা পেয়ে হানিফের স্ত্রী নিরালা ও তার ননদ রহিমা লাঠিপেটা শুরু করে। এক পর্যায়ে সে মারা যায়। নওগাঁ ইউপি  চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ খন্দকার জানান, প্রবাসী ফেরত হানিফ আলী দেশে ফেরার পর থেকেই কামরুল ইসলামের মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এরই জের ধরে খুশী বেগমকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

তাড়াশ থানার ওসি এটিএম আমিনুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘাতক নিরালা ও রহিমাকে আটক করেছে। এব্যাপারে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জে প্রেরণ করা হয়েছে।
 আহত শিশু শ্রমিকের মৃত্যু: লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  জানান, এক ব্যবসায়ীর হাতে আহত শিশু শ্রমিক রমজান আলী (১২) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে। গত মঙ্গলবার রাতে তার মৃত্যু হয়। রমজান আলী লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের বাঞ্চানগর গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে।
 রমজানের পরিবার জানায়, গত ৮ আগস্ট সকালে রমজানকে বাড়ি থেকে কাজ করার জন্য ডেকে নেয় জেলার সৌদিয়া ট্রেডার্সের মালিক আলী আহম্মদ। তরলদুধের দুইটি কার্টুন তার মাথা থেকে নিচে পড়ে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আলী আহম্মদ রড দিয়ে পিটিয়ে তাকে আহত করে। ১০ দিন পর সে মারা যায়। রমজানের মা শোকরী বেগম জানান, আমার ছেলে অসুস্থ হয়েছে, আমরা তার চিকিত্সা করিয়েছি; কিন্তু তাকে বাঁচানো যায়নি। ঐ দোকানের কেউ আমার ছেলের চিকিত্সার ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়নি।
 সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন মিয়া জানান, শিশু রমজান দুধের কার্টুন পড়ে আহত হয়েছে, নাকি মারধর করে আহত করা হয়েছে- সে বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্তের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।(ডেস্ক)