বি. এম. জুলফিকার রাযহান (দিনাজপুর২৪.কম) পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তালায় রুকাইয়া সুলতানা তৃপ্তি (৬) নামের এক শিশুকে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। সে উপজেলার দক্ষিন নলতা গ্রামের মো. জবেদ সরদারের কন্যা। গুরুতর আহত রুকাইয়া সুলতানাকে মূমুর্ষাবস্থায় তালা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জবেদ সরদার জানান, নলতা খইতলা এলাকার একটি ঘেরকে কেন্দ্র করে একই এলাকার মৃত. প্রতিনাথ সিংহ এর পুত্র আল্লাদ সিংহ, প্রহল্লাদ সিংহ ও সরোজ সিংহ গংদের সাথে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল। উক্ত বিরোধ মিমাংশার জন্য তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমারের নিকট একটি আবেদন করা হয়, যার শুনানী আগামী ৩ জুন। জবেদ আলী আরো জানান, আল্লাদ সিংহ গংদের বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যানের দপ্তরে অভিযোগ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে তারা প্রতিনিয়িত নানাবিধ হুমকি প্রদান করছিল। বুধবার দুপুরে খইতলা ঘের এলাকায় জবেদ আলীর স্ত্রী আসমা বেগম (২৫) ও শিশু কন্যা রুকাইয়া সুলতানাকে ফাকা পেয়ে প্রতিপক্ষ সরোজ সিংহ হামলা চালায়। এসময় বাঁশ দিয়ে আসমা বেগমকে পিটিয়ে আহত করা সহ শিশু কন্যা রুকাইয়া সুলতানাকে খুন করার জন্য মাথায় আঘাত করে। বাঁশের আঘাতে রুকাইয়া গুরতর আহত হলে মূমুর্ষাবস্থায় তাকে তালা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আনা হয়। এব্যপারে তালা তালা হাসপাতালে জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত ডাক্তার ফয়সাল জানান, মাথার জখম ঘটনায় শিশু রুকাইয়াকে বুধবার দুপুরে তালা হাসপাতালে আনা হয়। পরে মাথায় কাটাস্থলে সেলাই করার পর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় আহত শিশুর পিতা বাদী হয়ে তালা থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিয়েছেন।