বি.এম. জুলফিকার রায়হান (দিনাজপুর২৪.কম)  সাতক্ষীরার তালা উপজেলার উত্তর আগোলঝাড়া এবং হাতবাস ব্লকে চলতি আমন মৌসুমে দেশীয় ধানের বদলে উন্নত উফশী জাতের ব্রি-ধান-৩৯ ও ব্রি-ধান-৪৯ চাষাবাদ করা হবে। লোগো ও পাসিং ব্যবহার করে এই প্রজাতীর ধান চাষ করায় একদিকে ধান উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে, অপরদিকে ৪০/৪৫ দিন বয়সের ধানের চারা রোপনের পরিবর্তে ২০/২৫ দিন বয়সের ধানের চারা রোপন করে কৃষকরা অধিকতর লাভবান হবে। কিন্তু অত্র অঞ্চলের কৃষকরা উন্নত প্রজাতীর উফশী জাতের ধান চাষের সাথে পূর্ব পরিচিত না হওয়ায়, উক্ত উত্তর আগোলঝাড়া এবং হাতবাস  ব্লকের ১২৮জন কৃষক/কৃষাণীকে “উন্নত মানের উফশী প্রজাতীর আমন ধান” চাষাবাদের উপর প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়েছে। বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাক এর তালার শাহাপুর কেন্দ্র’র উদ্যোগে, সংস্থার কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় গত বুধবার সকালে শাহাপুর ব্র্যাক অফিসে উক্ত প্রশিক্ষন দেয়া হয়। কৃষক/কৃষানীদের প্রশিক্ষণ প্রদান করেন, তালা উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি অফিসার মো. আলী আহমদ এবং ব্র্যাক এর সিনিয়র উপজেলা ম্যানেজার কল্যাণ হালদার। প্রশিক্ষনকালে তালা সদর মডেল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাংবাদিক এস. এম. নজরুল ইসলাম, সাংবাদিক বি.এম. জুলফিকার রায়হান, ব্র্যাক এর সংশ্লিষ্ট প্রকল্প কর্মকর্তা প্রদ্যুৎ কুমার ঢালী, তাপস কুমার ঢালী, মো. আনোয়ার হোসেন ও জেবুন্নেছা প্রমুখ সহ উপকারভোগী কৃষক/কৃষাণীরা উপস্থিত ছিলেন। ব্র্যাক এর সিনিয়র উপজেলা ম্যানেজার কল্যাণ হালদার জানান, চলতি আমন মৌসুমে ব্র্যাক এর তত্বাবধানে তালা উপজেলায় ২৭০ একর জমিতে আধুনিক পদ্ধতিতে উফশী প্রজাতীর আমন ধান চাষাবাদ করা হচ্ছে। এছাড়া ১৫টি মৎস্য ঘেরকে সমন্বতি মৎস্য চাষ পদ্ধতির আওতায় আনা হচ্ছে। এবিষয়ে তালা সদর মডেল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাংবাদিক এস.এম. নজরুল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশে যেহারে জনসংখ্যা বাড়ছে, সে তুলনায় আবাদী জমির পরিমান বৃদ্ধি পাচ্ছে না। ফলে ব্র্যাকের সহযোগীতায় একই জমিতে ১টির পরিবর্তে ২টি এবং ২টির পরিবর্তে ৩টি ফসল উৎপাদন হওয়ায় একদিকে যেমন কৃষকরা আর্থিক ভাবে অধিক লাভবান হচ্ছেন, অপরদিকে খাদ্য উৎপাদনে তাঁরা গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখতে সক্ষম হচ্ছে। উক্ত প্রশিক্ষনে- কীটনাশক মুক্ত উন্নত প্রযুক্তিতে ধান চাষাবাদের জন্য কৃষকদের- অল্প বয়সের চারা রোপন, ধানের চারা রোপনের ১২ লাইন পর পর লোগো করা এবং ২০ হাত পর পর গোল পোষ্ট আকৃতির পার্সিং ব্যাবহার করার উপর প্রশিক্ষন দেয়া হয়।