বি. এম. জুলফিকার রায়হান (দিনাজপুর২৪.কম) জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র তালার লাউতাড়া গ্রামে গফফার মোড়ল’র বাড়িতে হামলা চালিয়েছে দূর্বৃত্তরা। হামলায় বাড়ি ঘর ভাংচুর সহ লুটপাট চালানো হয়। এসময় বাধা দেওয়ায় দূর্বৃত্তদের হামলায় নারী ও পুরুষ সহ একই পরিবারের ৩জন আহত হয়েছে।
উপজেলার লাউতাড়া গ্রামের মৃত আব্বাজ মোড়ল’র ছেলে মো. গফফার মোড়ল জানান, একই গ্রামের সোহরাব মোড়ল’র ছেলে রমজান মোড়ল গংদের সাথে তাদের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) রাত ১০টার দিকে রমজান মোড়ল সহ দূর্বৃত্ত মজিদ মোড়ল, এলেম মোড়ল, মিজানুর মোড়ল, মনিরুল মোড়ল ও সুফিয়া বেগম সহ ভাড়াটিয়া ১৫/২০জন দূর্বৃত্ত গফফার মোড়ল’র বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীদের মধ্যে মজিদ মোড়ল’র বিরুদ্ধে হামলা, দাঙ্গাবাজির ৩০/৩৫টি মামলা হয়। এরমধ্যে এখনও তার বিরুদ্ধে ৪টি মামলা চলমান রয়েছে। এছাড়া মিজানুর মোড়ল ও মনিরুল মোড়ল’র বিরুদ্ধে অনুরুপ অপরাধের একাধিক মামলা বিজ্ঞ আদালতে চলমান রয়েছে।
ভুক্তভোগী গফফার মোড়ল বলেন, দূর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র ও লোহার রড সহ লাঠিসোঠা নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালানোর সময় বাড়িঘর ভাংচুর করতে থাকে। এসময় বাঁধা দিতে গেলে হামলাকারী দূর্বৃত্তরা গফফার মোড়ল’র ভাই ছাত্তার মোড়ল, মান্নান মোড়ল এবং বৃদ্ধ মা’ মনোয়ারা বেগমকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। এছাড়া হামলাকারীরা মূল্যবান জিনিসপত্র লুটপাট করে- বলেও গফফার মোড়ল অভিযোগ করেছেন। হামলার ঘটনায় গুরুতর আহত ছাত্তার মোড়ল এবং তার বৃদ্ধ মা মনোয়ারা বেগমকে ওই রাতেই তলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের শুক্রবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরন করা হয়। এব্যপারে হামলাকারী দূর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে তালা থানায় ভুক্তভোগী গফফার মোড়ল একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এবিষয়ে তালা থানার ওসি মো. মেহেদী রাসেল বলেন, ঘটনার বিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।