(দিনাজপুর২৪.কম) তাজমহল প্রেমীদের জন্য দুঃসংবাদ। ভারত সরকার মোঘল সম্রাট শাহজাহানের অমর কীর্তি তাজমহলসহ দেশটির ঐতিহাসিক ভবনসমূহ পরিদর্শনের প্রবেশ মূল্য ২০০ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে। প্রতœতাত্ত্বিক সম্পদের প্রাচুর্যে ভরা ভারতে বহু ঐতিহাসিক স্থাপনা রয়েছে এবং বাংলাদেশসহ দেশ-বিদেশের লাখো দর্শণার্থী এ স্থানগুলোতে প্রতিদিন ভিড় করেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া। আর্কিওলজিকল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (এএসআই) ১২ বছরের বিরতির পর সব ক্যাটিগরির ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহের টিকেটের মূল্য ২০০ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে। ক্যাটিগরি ‘এ’-তে থাকা পুরাকীর্তিসমূহ, যেগুলোর মধ্যে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ স্বীকৃত স্থানসমূহও রয়েছে, ভারতীয়দের জন্য সেগুলোর টিকেটের মূল্য ১০ রুপি থেকে বাড়িয়ে ৩০ রুপি নির্ধারণ করা হয়েছে। সার্ক ও বিমসটেক রাষ্ট্রসমূহ ব্যাতীত বাকি রাষ্ট্রের পর্যটকদের জন্য টিকেটের মূল্য ২৫০ রুপি থেকে বৃদ্ধি করে ৭৫০ রুপি নির্ধারণ করা হয়েছে।
ভারতের অন্যান্য স্থানের প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনের তুলনায় তাজমহলে প্রবেশের জন্য আরও বেশি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এর কারণ আগ্রা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (এডিএ) টোল ট্যাক্স হিসেবে অতিরিক্ত ফি সংগ্রহ করে থাকে। ফলে, ভারতীয়দের জন্য তাজমহলে প্রবেশের নতুন ফি দাঁড়াবে ৪০ রুপিতে, যার মধ্যে ১০ রুপি দিতে হবে টোল ট্যাক্স বাবদ। বিদেশীদের জন্য তাজমহলের টিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১,২৫০ রুপি, যার মধ্যে ৫০০ রুপি কেটে নেয়া হবে টোল বাবদ। ৪৫ দিনের সময়সীমা বেঁধে দেয়া হবে সিদ্ধান্তটি চূড়ান্তভাবে কার্যকরের জন্য। প্রাথমিকভাবে, টিকেটের মূল্য বৃদ্ধিতে দর্শণার্থীদের  প্রতিক্রিয়া, অভিযোগ ও তাদের পরামর্শসমূহ বিবেচনা করা হবে। সব ঠিক থাকলে, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে টিকেটের বর্ধিত মূল্য চূড়ান্ত করা হবে। তবে ভারত ছাড়া সার্কভুক্ত অন্য রাষ্ট্র বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালদ্বীপ, আফগানিস্তান ও ভুটানের দর্শনার্থীদের জন্য ভারতীয় নাগরিকদের জন্য নির্ধারিত ফি প্রদান করতে হবে। বিমসটেকভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের জন্যও একই নিয়ম প্রযোজ্য। বিমসটেকভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে ভারত, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও ভুটান ছাড়াও রয়েছে থাইল্যান্ড এবং মিয়ানমার। তবে এডিএ সার্ক ও বিমসটেকভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের নাগরিকদের বিদেশী হিসেবে গণ্য করায় তাদের জন্য ৫০০ রুপির টোল ট্যাক্স প্রযোজ্য হবে। সবমিলিয়ে, তাজমহল দেখার জন্য তাদের টিকেট বাবদ ৫৩০ রুপি দিতে হবে।
এদিকে এডিএ টোল ট্যাক্স আরও বৃদ্ধি করার একটি প্রস্তাব পেশ করেছে। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে রাজ্য সরকারের কাছে পাঠানো এক প্রস্তাবে ভারতীয়দের জন্য বর্তমান টোল ট্যাক্স ১০ রুপি থেকে বৃদ্ধি করে ৪০ রুপি ও বিদেশী দর্শনার্থীদের কাছ থেকে ৫০০ রুপি থেকে বাড়িয়ে ৭৫০ রুপি করার প্রস্তাব দিয়েছে। রাজ্য সরকার এ ব্যাপারে এখনও কোন সিদ্ধান্তে উপনীত হয়নি।
ক্যাটিগরি ‘বি’-তে থাকা প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শণসমূহের প্রবেশ মূল্য ভারতীয়দের জন্য ৫ রুপি থেকে বৃদ্ধি করে ১৫ রুপি এবং বিদেশী দর্শনার্থীদের জন্য ১০০ রুপি থেকে বাড়িয়ে ৩০০ রুপি নির্ধারণ করা হয়েছে।
ভারতের পর্যটন সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ এ ব্যাপারে এরই মধ্যে তাদের অসন্তুষ্টির কথা ব্যক্ত করেছে এবং আজ সব সংগঠনকে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণে একটি জরুরি বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়েছে। তারা বলেছেন, এ ধরনের পদক্ষেপ পর্যটন খাতকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। এরই মধ্যে আগ্রায় গত ৩ বছরে বিদেশী পর্যটক সংখ্যা অস্বাভাবিক হারে হ্রাস পেয়েছে। ফেডারেশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব ইন্ডিয়ার প্রেসিডেন্ট রাজীব তিওয়ারি বলছিলেন, এখন ফি বাড়ানোর সময় নয়। এ পদক্ষেপ আগ্রায় আসা বিদেশী পর্যটকদের সংখ্যা আরও হ্রাস করবে। পর্যটকরা যেখানে ৯০০ রুপির বিনিময়ে ৩টি ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট দেখতে পারতেন, সেখানে নতুন মূল্য নির্ধারণ হলে তাদের ২,০০০ রুপি প্রদান করতে হবে।-ডেস্ক