(দিনাজপুর২৪.কম) করোনাভাইরাসের আতঙ্কে গোটা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলছে লকডাউন। ভারত সরকারও গত কয়েকদিন ধরে লকডাউন করে রেখেছে দেশ। এদিকে  বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত নিজের পরিবারের সঙ্গে তার মানালির বাড়িতে গৃহবন্দি রয়েছেন। সেখান থেকেই ভক্তদের জন্য ভিডিও শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী। ইনস্টাগ্রামে তার ফ্যানক্লাবের তরফে পোস্ট করা হয়েছে নায়িকার ভিডিও। নবরাত্রি থেকে যোগা, সবেতেই মন রয়েছে কঙ্গনার। আর এতেই তিনি শক্তি পান।

কিন্তু কঙ্গনার দিদি রঙ্গোলি চান্ডেলের দাবি, বোন এত বড় অভিনেত্রী হয়েও আজ পর্যন্ত কোনোদিন বিউটি পার্লারে যাননি।

(দিনাজপুর২৪.কম) সম্প্রতি রঙ্গোলি টুইটারে ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, এ কেমন অভিনেত্রী যে কখনো বিউটি পার্লারে যায় না। মুখে ব্ল্যাকহেডস ভরা। আজ কষ্ট করে তার তেমন একটি ছবি হাতে পেয়েছি…। কঙ্গনার এ ছবি তুলেছেন তাদের বাবা। দেখা গিয়েছে, দিদির কাছে ঘরোয়া বিউটি ট্রিটমেন্ট নিচ্ছেন নায়িকা। এরইসঙ্গে কঙ্গনা নিজেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। এই ভিডিওতে তিনি জানিয়েছেন, বলিউড জার্নির প্রথম দিকের কথা। ১৫-১৬ বছর বয়সে বাড়ি থেকে পালিয়ে অভিনেত্রী হতে মুম্বই চলে গিয়েছিলেন তিনি।

সেই সময় তিনি ড্রাগ অ্যাডিক্ট ছিলেন বলেও স্বীকার করেছেন। এমন ভিডিও শেয়ারের পর ভক্তদের নানা রকম মন্তব্য পাওয়া গেছে। কেউ কেউ বলছেন, কঙ্গনা সাহসী বলেই এমন সত্যি কথা বলতে পেরেছেন। বলিউডে আর কোনো নায়িকা এমন সত্যি বলার সাহস রাখেন না! আবার অনেকে সমালোচনা করে বলেছেন, কঙ্গনা যে ড্রাগ অ্যাডিক্ট এটা সবাই জানে, নতুন করে বলার কি আছে! অনেকে বলেছেন, কঙ্গনা খুব অহংকার করেই অ্যাডিকশনের কথা বলছেন, যেন এটি খুব গর্বের বিষয়। তবে এসব আলোচনা-সমালোচনার কোনো জবাব এখনো দেননি কঙ্গনা। -ডেস্ক