শাহিনুর রহমান (দিনাজপুর২৪.কম)  ডেঙ্গু’র হানায় প্রাণ হারালেন পার্বতীপুরের হারুনুর রশিদ (২৬) নামক এক যুবক। গত শনিবার ভোর রাতে এ্যাম্বুলেন্স যোগে তার লাশ দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার কালীকাবাড়ী গ্রামে এসে পৌছয়। তার বাবার নাম শমসের আলী। সে ঢাকার ওয়াল্টন কোম্পানীর গাজীপুর শাখায় চাকুরী করতো। থাকতো চানদুরা হাজীপাড়া গ্রামে। হারুনুর রশিদের বন্ধু আরিফ জানায় ৭-৮দিন আগে সে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়। বেতন না হওয়ায় যাথাযথ চিকিৎসা নিতে পারছিলনা। শুক্রবার অবস্থা আশংকজনক হলে একই ভাড়া বাড়ীতে বসবাসরত অন্যন বন্ধুরা একটি এ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে গ্রামের বাড়ী পার্বতীপুরের উদ্যেশে যাত্রা করে। পথিমধ্যে টাঙ্গাইলের আশে পাশে কোন এক স্থানে তার মৃত্যু হয়। দরিদ্র পরিবারের সন্তান সে। পরিবারে চলছে শোকের মাতম। গেল রমজানের ঈদের একদিন পরে তার বিয়ে হয়েছিল। হাতের মেহেদী না শুকতই স্বামীহারা হলো তার স্ত্রী। ডেঙ্গুর কোরাল গ্রাস কেড়ে নিল একটি তাজা প্রাণ। হারুনুর রশিদের বাড়ীতে গিয়ে দেখা গেল বাড়ীর আঙ্গনায় পড়ে আছে মৃত দেহ। মা মরিয়ম খাতুন ও বাবা একমাত্র উপার্জনক্ষম চাকুরীজীবি সন্তানকে হারিয়ে নির্বাক হয়ে গেছেন। তিন ভাই তিন বোনের মধ্যে সে ছিল বড়।