(দিনাজপুর২৪.কম) অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে বিয়ে করাসহ নানা অপকর্মের জন্য অভিযুক্ত পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমানকে প্রত্যাহার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। মঙ্গলবার (০৯ জানুয়ারি) বিকালে মিজানকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন পুলিশ সদর দফতেরর এআইজি (মিডিয়া) সোহেলী ফেরেদৌস।

এর আগে, গতকাল সোমবার বিকেলে ডিআইজি মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক বিয়ে ও নির্যাতনের অভিযোগ তদন্তে কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সেসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিষয়ে পুলিশের অভ্যন্তরীণ তদন্ত চলছে। তার অপরাধ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডিআইজির বিরুদ্ধে ওই ব্যাংকার নারীর অভিযোগ, গত বছরের জুলাই মাসে তার বাসা থেকে তাকে কৌশলে তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা মিজান। পরে বেইলি রোডে তার বাসায় নিয়ে তিনদিন আটকে রাখা হয়েছিল ওই নারীকে। আটকে রাখার পর বগুড়া থেকে তার মাকে ১৭ জুলাই ডেকে আনা হয় এবং ৫০ লাখ টাকা কাবিননামায় ডিআইজি মিজানকে বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়। পরে লালমাটিয়ার একটি ভাড়া বাড়িতে ওই নারীর সঙ্গে বসবাস করেছেন ডিআইজি মিজান। নিজের ফেসবুকে স্ত্রী পরিচয় দিয়ে একটি ছবি শেয়ারের পর ওই নারীর ওপর ক্ষেপে যান ডিআইজি মিজান।

পরে বাড়ি ভাঙচুরের একটি মামলায় ওই নারীকে গ্রেপ্তার করে গত ১২ ডিসেম্বর কারাগারে পাঠানো হয়। সেই মামলায় জামিন পাওয়ার পর মিথ্যা কাবিননামা তৈরির অভিযোগে আরেকটি মামলায় তাকে আটক দেখানো হয়। দুই মামলাতেই জামিনের পর ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তোলেন ওই নারী।

ওই নারী বলেছেন, ২০১৯ সাল পর্যন্ত বিয়ের বিষয়টি গোপন রাখতে বলেছিলেন ডিআইজি। কিন্তু ওই নারী বিয়ের বিষয়টি প্রকাশ করেন। অভিযুক্ত ওই পুলিশ কর্মকর্তার প্রথম স্ত্রী ও সন্তান কানাডায় বসবাস করেন। এদিকে পুলিশের এ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আরো একাধিক নারীকে উত্ত্যক্ত করাসহ পুলিশ দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা। -ডেস্ক