-সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) ঠাকুরগাঁওয়ে সদর উপজেলার রুহিয়ায় পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে খাবারের সাথে দুই সন্তানেরে মুখে বিষ দিয়েছেন নুরবানু আক্তার নামের এক মা। এসময় নিজেও বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন সেই গৃহবধূ। বৃহস্পতিবার সকালে ঠাকুরগাঁওয়ের সদর উপজেলার রুহিয়া থানার ঘনিমহেষপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত নুরজ্জামান(১৮মাস) ঘনি মহেশষপুর গ্রামের সেলিম উদ্দীনের ছোট ছেলে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছোট মেয়ে শাম্মী আক্তার(০৬) মৃত্যু বরণ করে। বর্তমান নুরবানু আক্তার চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ ও পরিবারের স্বজনেরা জানান, রাতে হঠাৎ করেই শ্বাশুড়ির সাথে ঝগড়া লাগে নুরবানুর। পরে সব ঠিক হয়ে যায়। পরের দিন সকালে তার স্বামী বাসা থেকে বেড় হয়ে যাবার পরেই নুরবানু তার দুই বাঁচ্চার মুখে বিষ দিয়ে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় ও পরিবারের লোকেরা তাদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তবরত চিকিৎসক ছোট ছেলে নুরুজ্জামানকে মৃত ঘোষনা করেন, পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেয়ে শাম্মী আক্তার(০৬) মৃত্যু বরণকরে।

নুরবানুর স্বামী সেলিম উদ্দীন জানান, সকালে প্রতিদিনের ন্যায় কাজের সন্ধানে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। আমার স্ত্রী দুই সন্তানের মুখে বিষ দিয়ে নিজেও বিষ খেয়েছে এমন খবর স্থানীয়রা জানালে আমি তিনজনকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি।

রুহিয়া থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় মুঠোফোনে জানান, স্বামী-স্ত্রী’র ঝগড়া কারণে দুই সন্তানের মুখে বিষ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে তার স্ত্রী। এমনটা প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে পুলিশ। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষে বলা যাবে প্রকৃত ঘটনা। -ডেস্ক