(দিনাজপুর২৪.কম) স্বল্প খরচ হওয়ার কারনে ঠাকুরগাঁওয়ে দিন দিন বাড়ছে তুলা চাষ। এতে বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে বলে মনে করছেন কৃষি কর্মকর্তাগন। গত মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার ষ্টোর কাম ফিল্ড ম্যান নাহিদ সুলতানার তত্বাবধানে ছোট খোচাবাড়ি গ্রামের আনছারুল হকের প্লট পরিদর্শন শেষে এমন মন্তব্য করেন। তুলা উন্নয়ন বোর্ড ঠাকুরগাঁও জোন এর তথ্য মতে, চলতি মৌসুমে ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, পঞ্চগড় জেলায় ১৪শ হেক্টর জমিতে তুলা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়। এর মধ্যে ১৩টি ইউনিটের মাধ্যমে প্রায় ৬শ হেক্টর জমিতে তুলা চাষাবাদ করা হয়েছে। হাইব্রীড, সিবি ১২, সিবি ১৪, জাতের তুলা চাষে একবিঘা (৩৩ শতাংশ) জমিতে খরচ হয় ৮/১০ হাজার  টাকা। আর সব সব খরচ বাদ দিয়ে ১২/১৫ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। আর সময় লাগে ১শ ৬০ থেকে ৭০ দিন। এমন পরিস্থিতিতে জেলায় দিন দিন তুলা চাষ চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের। সদর উপজেলার খোচাবাড়ি, শিবগঞ্জ, চিলারং, পুরাতন ঠাকুরগাঁওসহ বেশ কয়েকটি প্লট পরিদর্শন করেন তুলা উন্নয়ন রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ নাছির উদ্দিন, কীট পতঙ্গ বিষেশজ্ঞ কৃষিবৃদি ফজলে রাব্বি, তুলা উন্নয়ন বোর্ড ঠাকুরগাঁও জোনের প্রধান তুলা উন্নয়ন কর্মকর্তা শেখ আল মামুন, প্রধান সহকারি নাজমুল ইসলাম ঋষি প্রমুখ।
এ বিষয়ে তুলা উন্নয়ন রংপুর অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ নাছির উদ্দিন জানান, ঠাকুরগাঁও জেলার মাটি ও আবহাওয়া তুলা চাষে উপযোগী হওয়ায় তুলা চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। চলতি মৌসুমে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে। তুলা চাষাবাদে কৃষককে তুলা উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বিভাগীয় ঋণ প্রদানসহ যাবতীয় পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।