(দিনাজপুর২৪.কম) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফোন প্রত্যাখ্যান করায় বরখাস্ত হয়েছেন নিউইয়র্কের সাবেক একজন রাষ্ট্রীয় আইনজীবী প্রিট ভারারা। মূলত, প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে অস্বাভাবিক কয়েকটি ফোন কল আসে। যার মধ্যে সর্বশেষ ফোন কলটি প্রত্যাখ্যান করেন ভারারা। এবিসি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এমনটিই দাবি করেছেন স্বয়ং ভারারা।

এসময় তিনি বলেন, দেশটিতে নির্বাহী বিভাগ থেকে অপরাধ তদন্ত বিভাগের যে স্বাধীনতা রয়েছে তার সীমা লঙ্ঘন করছিল ফোন কলগুলো। ভারারা বলেন, তিনি তৃতীয় ‘ফোন কল’টি প্রত্যাখ্যান করার পরই তাকে বরখাস্ত করা হয়। তিনি আরো বলেন, ২০১৬ সালের শেষের দিকে তাদের দুজনের সাক্ষাত হওয়ার পর থেকে ট্রাম্প আলাদা ধরনের সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু ভারারার মনে হয়েছে ট্রাম্প প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর কোনো আইনজীবীর সঙ্গে কোনো ধরনের আলাদা সম্পর্ক গড়ে তোলা ‘অসঙ্গত’ বা ‘অনুচিত’।

সাবেক এই আইনজীবী বলেন, ‘কোনো প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে কোনো ফোন কল আশাও করা যাবে না। কারণ, বিচার ব্যবস্থাকে কোনো ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ বা সম্পর্ক এড়িয়ে চলতে হবে। এমন সীমাই বেঁধে দেয়া হয়েছে। ’

ওবামার নিয়োগপ্রাপ্ত আইনজীবী ছিলেন ভারারা, যিনি ম্যানহাটানের শীর্ষ রাষ্ট্রীয় আইনজীবী হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি বলেন, ‘গত সাড়ে সাত বছরে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আমাকে একটা ফোনও করেননি। ’

প্রসঙ্গত, তার এই মন্তব্যের পর হোয়াইট হাউসের কোনো প্রতিক্রিয়া এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

সূত্র: বিবিসি