(দিনাজপুর২৪.কম) টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন যুবক নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি নিহতরা মানবপাচার মামলার পলাতক আসামি। ২৫ জুন ভোর রাতে  টেকনাফ উপজেলার মহেষখালিয়াপাড়া নৌকাঘাটে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৩টি এলজি, শর্টগানের ১৫টি তাজা গুলি ও ২০টি খালি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন, টেকনাফ সাবরাং ইউনিয়নের নয়াপাড়ার বাসিন্দা আবদুর শুক্কুরের ছেলে কোরবান আলী (৩০), পৌরসভার কে কে পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে আবদুল কাদের (২৫) ও একই এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে আবদুর রহমান (৩০)।

ওসি জানান, রাতে পলাতক আসামিদের ধরতে পুলিশের একটি দল উপজেলার মহেষখালিয়াপাড়ার নৌকাঘাট এলাকায় পৌঁছায়। উপস্থিতি টেরপেয়ে সেখানে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় মানবপাচারকারী দলের সদস্যরা। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে অস্ত্রধারীরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করা হয়।

ওসি আরো জানান, নিহত তিনজনের বিরুদ্ধে ১৫ জন রোহিঙ্গাকে পাচার মামলারের অভিযোগে মামলা রয়েছে। এ মামলায় তারা পলাতক আসামি। রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবির থেকে রোহিঙ্গাদের কৌশলে মালয়েশিয়া পাঠানোর কথা বলে টাকা-পয়সা আত্মসাৎ করছিলেন তারা। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পৃথক মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। -ডেস্ক