(দিনাজপুর২৪.কম) টেকনাফে গুলিবিদ্ধ হামিদ হোসেন (৩৮) নামে এক রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর নিহতের লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ থানার উপপরিদর্শক সুজিত চন্দ্র দে।

তিনি জানান, নিহতের বুকে ও শরীরে আটটি গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

নিহত হামিদ শালবন ক্যাম্প-২৬ এর ব্লকে বসবাসকারী মৃত মো. হোসেনের ছেলে।

জানা গেছে, নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আনসার কমান্ডার হত্যা ও অস্ত্র লুট মামলার আসামি নুরুল আলম শুক্রবার ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়ার জেরে সন্ধ্যার পর শালবন ও নয়াপাড়া ক্যাম্পে তাণ্ডব চালায় তার সহযোগীরা।

আইনশৃংখলা বাহিনীকে সহযোগিতার অভিযোগে সন্দিগ্ধ রোহিঙ্গাদের খুঁজতে থাকেন তারা। এসময় প্রথমে তারা হামিদকে পাহাড়ের কাছে নিয়ে গুলি করে ফেলে রাখেন।

এসময় ভয়ে অন্য রোহিঙ্গারা বা তার পরিবারের সদস্যরা গুলিবিদ্ধ হামিদকে উদ্ধারে এগিয়ে যায়নি। পরে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

পরে রাতে হামিদের লাশ খুঁজে পেয়ে থানায় খবর দেয়া হলে ভোরে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নয়াপাড়া ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ আব্দুস সালাম জানান, বর্তমানে ক্যাম্পের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।-ডেস্ক