(দিনাজপুর২৪.কম) ট্রান্সপারেন্সি ইন্টার-ন্যাশনাল বাংলাদেশ-এর কর্মকর্তাদের সম্পদের বিবরণ প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারিতে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল চিলির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগের প্রেক্ষাপটে তিনি এই দাবি জানান। জনপ্রতিনিধিদের যেমন সম্পদের হিসাব দাখিল করতে হয়, দুর্নীতি পর্যবেক্ষকদের ক্ষেত্রেও তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে আইন করার কথা বলেছেন তিনি। মঙ্গলবার মধ্যরাতে ফেসবুকে জয় লিখেছেন, আমরা কী করে জানি যে, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের সদস্যরা দুর্নীতিগ্রস্ত নয়, তাদের কোনো লুকানো সম্পদ নেই এবং তারা তাদের সব ট্যাক্স পরিশোধ করেছে? একটা বিষয় আমি উত্থাপন করতে চাই, সেটা হলো সমপ্রতি চিলির ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের প্রধানের পদত্যাগ। বিদেশে সম্পদ লুকানোর বিষয়ে তার নাম এসেছিলো পানামা পেপার্সে। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল কতটা স্বচ্ছ এবং অন্যদের দুর্নীতিগ্রস্ত বলার অধিকার তাদের কীভাবে থাকে? সর্বোপরি, আমাদের দেশে সব সংসদ সদস্য এবং মন্ত্রীদের সম্পদের বিবরণ দিতে হয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ নিজেদেরটা দেয় না, তথাপিও তারা তাদের দুর্নীতির পর্যবেক্ষক বলে দাবি করে। তাদের যদি সাহস থাকে, তবে অন্যের দুর্নীতির বিষয়ে মন্তব্য করার আগে তাদের স্বেচ্ছায় নিজেদের সম্পদের বিবরণ প্রকাশ করা উচিত। স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, আমার সন্দেহ আছে যে, তাদের সেই সাহস রয়েছে কি না, তাই মনে হয় একটি আইন থাকা প্রয়োজন। যে কেউ দুর্নীতির বিষয়ে পর্যবেক্ষক হতে চাইবে তাদের নিজেদের সম্পদের বিবরণ দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিল করে নিতে হবে, ঠিক যেমন এমপিদের করতে হয়। “ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ তাদের সম্পদের বিবরণ প্রকাশ করে এটা প্রমাণ করুক যে তারা তাদের চিলি শাখার মতোই দুর্নীতিগ্রস্ত নয়। -ডেস্ক