(দিনাজপুর২৪.কম) একের পর এক ছবিতে তার অভিনয় প্রতিভায় অভিভূত ওপার বাংলা। শুধু কী কলকাতা? গোটা ভারতের দর্শকের মন জয় করে নিয়েছেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। আর তার জন্যই জি সিনে অ্যাওয়র্ডসের আসরে আঞ্চলিক ভাষার ছবিতে সেরা অভিনেত্রীর সম্মানও জিতে নিয়েছেন ৪৫ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী। এদিকে, জয়া আহসানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ভারতীয় মিডিয়া। ওপার বাংলার ‘আবর্ত’, ‘রাজকাহিনী’, ‘ঈগলের চোখ’ ও বিসর্জনের মতো ছবিতে অভিনয়ে সাফল্য দেখিয়েছেন বাংলাদেশের এই অভিনেত্রী। এজন্য নায়িকার সৌন্দর্য ও অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন ভারতীয় গণমাধ্যম।
এক প্রতিবেদনে ওয়ান ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ‘বাঙালি রমনীর মাধুর্য বা স্বাভাবিক যে সৌন্দর্য তা যেন আলাদা মাহাত্ম নিয়ে ধরা দিয়েছে জয়ার মধ্যে। বাঙালি মহিলার কমনীয় তন্বী রূপ বার বার ফুটে ওঠে জয়ার সৌন্দর্যে। শুধু রূপ বা সৌন্দর্যেই নয়। জয়া আহসান, তাঁর বুদ্ধিদীপ্ত অভিনয় দক্ষতা দিয়েও মন জয় করেছেন দর্শককূলের। চলতি বছরে মুক্তি পাওয়া ‘বিসর্জন’ ছবিতে জয়ার অভিনয় দাগ কেটেছে অনেকের মনে। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় পরিচালিত এই ছবিতে জয়াকে যেন নতুন করে আবিষ্কার করতে পেরেছে বাঙালি দর্শক।’
গণমাধ্যমটি আরও লিখেছে, ২০১৭ সাল তাঁর কাছে শ্রেফ সাফল্য ধরে রাখার বছর। কারণ ভারতীয় চলচ্চিত্রে তাঁর সাফল্যের পথ চলা অনেক আগে থেকেই শুরু হয়েছে। ‘আবর্ত’, ‘রাজকাহিনী’, ‘ঈগলের চোখ’, ইত্যাদি ছবিতে জয়া বড় পর্দা যেমন মাতিয়েছেন। তেমনই ইন্টারনেটে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ভালোবাসার শহর’ -এর মতো স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবিতেও সমান দাপটে অভিনয় করেছেন এই অভিনেত্রী। ২০১৭ সালে জয়া প্রমাণ করেছেন কেন তিনি ‘নিউজ মেকার’ হওয়ার দাবি রাখেন। আর সেই সূত্র ধরেই জয়ার গুণমুগ্ধরা চেয়ে আছেন পরের বছরে মুক্তি পেতে চলা জয়ার ছবিগুলির দিকে। তার মধ্যে অন্যতম জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে মুক্তি পেতে চলা ‘আমি জয় চ্যাটার্জি’। এই ছবির হাত ধরে আবারও আবির চ্যাটার্জি-জয়া আহসান জুটিকে নিয়ে বাড়ছে দর্শককূলের কৌতুহল।’ -ডেস্ক