(দিনাজপুর২৪.কম) জুলাই মাসে দেশের সামগ্রিক মানবাধিকার পরিস্থিতির ইতিবাচক কোন পরিবর্তন হয়নি বলে মনে করে দেশের অন্যতম মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা। সংস্থার মাসিক পর্যবেক্ষণ ও গবেষণার মাধ্যমে জুলাই মাসের এ চিত্র সামনে আসে। পারিবারিক ও সামাজিক নৃসংশতার বিষয়টি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে যা উদ্বেগজনক। এছাড়াও শিশু হত্যা, শিশু ধর্ষণ, গণ ধর্ষণ,পারিবারিক ও সামাজিক কোন্দলে আাহত ও নিহত, নারী নির্যাতন, রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনাগুলি ছিল উল্লেখযোগ্য এ মাসে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার জুলাই মাসের মনিটরিং-এ পাওয়া তথ্য-উপাত্ত থেকে দেখা যায়:

আত্মহত্যা ঃ জুলাই মাসে সারা দেশে আত্মহত্যা করেছে ৫৯ জন । এদের মধ্যে ২০জন পুরুষ ও ৩৮ জন নারী ও ১ জন শিশু। পারিবারিক দ্বন্দ্ব, প্রেমে ব্যর্থতা, অভিমান, রাগ ও যৌন হয়রানী, পরীক্ষায় খারাপ ফল । ঢাকা বিভাগে আত্মহত্যার ঘটনা সবচেয়ে বেশী। এর মধ্যে ঢাকা, ফরিদপুর ও নারায়নগঞ্জে আত্মহত্যার হার বেশী।

ধর্ষণ ঃ জুলাই মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৮০ জন নারী ও শিশু । এদের মধ্যে শিশু ৩২ জন। ৩৭জন নারী। ৮ জন নারী গণ ধর্ষণের শিকার হন ও ৩ জনকে ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়। রাজধানীর বাড্ডায় ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। বগুড়ায় এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করে পরবর্তীতে তাকে ও তার মাকে মাথা ন্যাড়া করে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। ঢাকা , চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে ধর্ষণের ঘটনা তুলনামূলক বেশী।

শিশু হত্যা ঃ জুলাই মাসে ৩৪ শিশুকে হত্যা করা হয় । এদের মধ্যে স্বয়ং পিতা মাতা কর্তৃক খুন হয় ৫ শিশু। নীলফামারীতে দশ মাসের শিশু কন্যাকে কুপিয়ে হত্যা করে পাষন্ড পিতা। ঝালকাঠিতে ৮ হাজার টাকা চুরির অপরাধে চতুর্থ শ্রেনীর এক ছাত্রকে হাত পা বেধেঁ নির্যাতন করা হয়। ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগে শিশু হত্যার সংখ্যা বেশী।

যৌতুকঃ জুলাই মাসে যৌতুকের কারনে প্রাণ দিতে হয়েছে ৬ জন নারীকে । নির্যাতনের শিকার হয় ৫ জন । রংপুরে এক গৃহবধূকে যৈৗতুকের জন্য মারধর করে মাথার চুল কেটে দিয়েছে স্বামী ও শ্বশুড় বাড়ীর লোক জন। যৌতুকের কারনে গৃহবধূ হত্যার ঘটনা ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগে বেশী।

ক্রস ফায়ার : জুলাই মাসে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ক্রস ফায়ারে নিহত হন ১৪ জন। পুলিশের ক্রস ফায়ারে ১২ জন, র‌্যাবের ক্রস ফায়ারে ২ জন । চট্টগ্রাম ও খুলনা বিভাগে ক্রসফায়ারের ঘটনা বেশী।

পারিবারিক কলহঃ পারিবারিক কলহে জুলাই মাসে নিহত হন ৩৭ জন, এদের মধ্যে পুরুষ ১১ জন ,নারী ২৬ জন।। এদের মধ্যে স্বামীর হাতে নিহত হন ২৩ জন নারী। আর স্ত্রীর হাতে নিহত হন ২ জন স্বামী । পারিবারিক সদস্যদের মধ্যে দ্বন্ধ, রাগ, পরকীয়া সহ বিভিন্ন পারিবারিক কারনে এই সব মৃত্যু সংগঠিত হয় বলে জানা গেছে। এ মাসে কুমিল্লায় গর্ভে কন্যা সন্তান আসায় স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী।

সামাজিক অসন্তোষ ঃ সামাজিক অসন্তোষের শিকার হয়ে এই মাসে নিহত হয়েছেন ১৩ জন ! আহত হয়েছেন ৩১২ জন। সামাজিক সহিংসতায় আহত ও নিহতের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে । পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে মারামারিতে নিহত হন এক জন দোকানী। পাবনায় ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে বিরোধে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন হন।

খুন ঃ জুলাই মাসে দেশে সন্ত্রাসী কর্তৃক নিহত হন ৭৩ জন । আহত হয় ৩৩ জন। চট্টগ্রামে এক নৈশপ্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা করে র্দুবৃত্তরা। মেহেরপুরে পূর্ব শত্রুতার জেড়ে এক ব্যাক্তিকে হত্যা করা হয়।

অন্যান্য সহিংসতার ঘটনা- জুলাই মাসে মাদকের প্রভাবে বিভিন্ন ভাবে নিহতের সংখ্যা ৩ জন, আহত হয় ৫ জন। পানিতে ডুবে, অসাবধানবশত, বিদ্যুৎপৃস্ট হয়ে, বজ্রপাতে, পাহাড় ধসে মৃত্যুবরন করেছে ৭৮ জন। গণপিটুনিতে নিহত হয় ৩ । চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু হয় ১০ জনের। রাজনৈতিক সহিংসতায় আহত হয় ১৪৯ জন। অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার হয়েছে ২৬ টি। জঙ্গি ও সন্ত্রাসী দমন অভিযানে গনগ্রেফতার করা হয় ৪২৪ জনকে।

(তথ্য সুত্রঃ জুলাই ২০১৭ মাসে দেশে প্রকাশিত বিভিন্ন দৈনিক পত্র-পত্রিকা এবং সংস্থার বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও পৌরসভা শাখার মাধ্যমে সংগৃহিত তথ্য। এর বাইরেও মানবাধিকার লংঘন জনিত কিছু ঘটনা থাকতে পারে যা আমাদের সীমাবদ্ধতার কারনে সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি)

……………………………………………………………………………………………………………………………………………

ফাতেমা ইয়াসমিন
কমিউনিকেশন এন্ড ডকুমেন্টশন অফিসার
বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা (বিএমবিএস)