-ফাইর ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) আজ রবিবার (৩ নভেম্বর) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে আয়োজিত জেল হত্যা দিবসের আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘খন্দকার মোশতাকের নির্দেশে জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্ত্র নিয়ে ঢোকা যায় না। কিন্তু তারা অস্ত্র নিয়ে ঢুকেছিল। গণভবন থেকে সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল, যেভাবে ঢুকতে চায়, সেভাবেই যেন ঢুকতে দেওয়া হয়।’

জেলে জাতীয় চার নেতার হত্যাকাণ্ডে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান জড়িত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জেল হত্যায় জিয়াউর রহমান জড়িত বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জেল হত্যায় জিয়াউর রহমান জড়িত বলেই খন্দকার মোশতাক ক্ষমতায় গিয়ে তাকে সেনাপ্রধান করে।

তিনি বলেন, দেশের অগ্রযাত্রা রুখে দিতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়। আর ১৫ আগস্টের পর জেলখানায় ৩ নভেম্বর জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়। এই দুই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা বিরোধীদের বিচার শুরু করতে চেয়েছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ওই সময় গোলাম আজমসহ অনেক স্বাধীনতা বিরোধীরা পাকিস্তানের ভিসা নিয়ে পালিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে স্বাধীনতা বিরোধী গোলাম আজমদের দেশে আনেন। তাদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দেন।-ডেস্ক