Janaja Namaj Pictureস্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম)  স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সংবিধান প্রনেতা, সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি বর্ষিয়ান জননেতা আলহাজ¦ এ্যাড. এম আব্দুর রহিম’র নামাযে জানাযা সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর ) সকাল ১১টায় দিনাজপুর বড় ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়।
দিনাজপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত লাখো মুসল্লী জানাযার নামাজে অংশগ্রহণ করেন। জানাযা পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মরহুমের ছেলে হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। এতে অংশগ্রহণ করেন মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী এ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, জেলা পরিষদের প্রশাসক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, পুলিশ সুপার মো. হামিদুল আলমসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লাখো মানুষ।
এর আগে তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিদ্দিক গজনবীর নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ। এছাড়া বিভিন্ন ব্যক্তি, সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পূষ্পার্ঘ অর্পন করেন। পরে দুপুর ২টায় সদর উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের পাঁচকুড় ঈদগাহ মাঠে চতুর্থ ও শেষ জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। জানাযা শেষে তাঁর নিজ গ্রাম জালালপুরে পারিবারিক গোরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।
উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রোববার সকাল ১১টায় ঢাকাস্থ বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন। (ইন্নালিল্লাহে……. রাজেউন)। মৃত্যুকালে মরহুমের বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ পুত্র, ৩ কন্যা, নাতী-নাতনীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে দিনাজপুরজুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে। দিনাজপুর শহরের মুন্সিপাড়াস্থ তাঁর নিজ বাসভবনে (নাজমা-রহিম ফাউন্ডেশন) শোকার্ত মানুষের ঢল নামে। ওইদিন বিকেলেই জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা আইনজীবি সমিতি প্রাঙ্গণে দ্বিতীয় নামাযে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকায় রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরীসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দ তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুস্পমাল্য অর্পন করেন।
এদিকে তাঁর মৃত্যুতে আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির পেশার মানুষ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। শোক বার্তায় তারা মরুহুমের রুগের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেনা জানিয়েছেন।