(দিনাজপুর২৪.কম)  চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানা থেকে অস্ত্র, বোমা, গ্রেনেড উদ্ধারের এক সপ্তাহের মধ্যে জেলার  সীতাকুণ্ডে সন্দেহভাজন আরও দুটি জঙ্গি আস্তানা খুঁজে পাওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ। সন্দেহভাজর দুটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চলছে। এর মধ্যে অভিযানের সময় একটি আস্তানা থেকে পুলিশের উপর গ্রেনেড হামলা করেছে সন্দেহভাজন জঙ্গিরা।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মসিউদ্দৌলা রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ মাদারি টোলা এলাকায় একটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায়। আস্তানাটি ঘেরাও করে পুলিশ জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের অনুরোধ জানালে তারা পুলিশের উপর দুইটি গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। গ্রেনেডটি বিস্ফোরিত হয়ে পুলিশের এক সদস্য আহত হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে সন্দেহভাজন এক জঙ্গিকে আটক করা হয়েছে। আস্তানাটি পুলিশ ঘেরাও করে রেখেছে এবং ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ ও বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট পাঠানো হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা জানান, গোপন সুত্রে এই আস্তানা দুটির খবর পাওয়ার পর বুধবার দুপরের দিকে অভিযান শুরু হয়।  আস্তানা দুটি মধ্যবর্তী দূরত্ব কয়েকশ গজ মাত্র। দুটি আস্তানার ভেতরেই অস্ত্র-গুলি, হ্যান্ড গ্রেনেড ও বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক রয়েছে বলে আমাদের ধারণা।’

একটি সন্দেহভাজন জঙ্গিদের সঙ্গে তিন নারী ও শিশু রয়েছে। ফলে পুলিশ অত্যন্ত সতর্কতার সাথে অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এর আগে, গত ৭ মার্চ চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে একটি সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় পুলিশ। সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধারের কথা জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এখানে পাওয়া গ্রেনেডগুলোর সঙ্গে ২০১৬ সালের জুলাইয়ে ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলাকারীরা যেসব গ্রেনেড ব্যবহার করেছিল তার মিল রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। -ডেস্ক