(দিনাজপুর ২৪.কম) চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইন কোর্য়াটারে পুলিশ কনেস্টেবল হেলাল পারভেজের স্ত্রী শান্তা বেগম (২৪) নিজ বেডরুমের সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মাগুরা জেলা শহরের ভাইনার মোড়ের বাসিন্দা জিবলী গাজীর মেয়ে শান্তা বেগম । আজ শনিবার সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।
চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনের আর আর আই আমিরুল ইসলাম জানান, আজ শনিবার ভোর রাতের দিকে কোয়াটারে হৈচৈ শুনে হেলাল পারভেজের কোয়ার্টারে গিয়ে দেখা যায়, তার স্ত্রী শান্তা বেগম নিজ রুমের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে। কোয়ার্টারের সদস্যরা তাকে সিলিং ফ্যান থেকে নামিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরো জানান, কয়েক মাস হলো এস এ এফ কনেস্টেবল-৬২২ হেলাল পারভেজ পুলিশ লাইনের কোয়ার্টারে এসে বসবাস শুরু করেন। স্বামীর সাথে মনোমালিন্যের কারণে স্ত্রী শাস্তা বেগম আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
শান্তার বাবা জিবলী গাজী জানান, ৪ বছর আগে পারিবারিকভাবে মাগুরা জেলার শ্রীপুর গ্রামের নবাবুল মাষ্টারের ছেলে হেলাল পারভেজের সাথে শান্তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে খুব একটা বড় ধরণের কলহ না থাকলেও মাঝে মধ্যে তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়েছে। এদিকে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ লিয়াকত আলী জানান, এ ব্যাপারে সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে পরবর্তি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।