মো: আসলাম আলী আঙ্গুর (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দূর্নীতি, সদস্যদের সঙ্গে অসদাচরণ ও অনাস্থা জ্ঞাপন করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অভিযোগ দিয়েছেন পরিষদের সদস্যরা। গত ১০ জুন চিরিরবন্দর উপজেলার ৮ নং সাইতারা ই্উনিয়নের বিএনপি সমর্থীত চেয়ারম্যান মোঃ মোকাররম হোসেনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ দেন ইউনিয়ন পরিষদের ১১ জন সদস্য । অভিযোগে উল্লেখ করা হয় গত ২৩ আগষ্ট ২০১৬ সালে পরিষদ গঠন করা হয়। এরপর থেকে চেয়ারম্যান মোঃ মোকাররম হোসেন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের কোন তোয়াক্কা বা মূল্যায়ন করেন না। তিনি একজন স্বেচ্ছাচারি,বদমেজাজি ও দূর্নীতিবাজ ব্যক্তি । এখন পর্যন্ত কোন মাসিক মিটিং অফিসে বসে করেন নাই। নির্বাচিত ইউপি সদস্যদেরকে প্রকাশ্যে অশ্লিন ভাষায় গালিগালাজ ও অপমান করেন। অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, ভূমি হস্তান্তরের ১% আদায়, এডিপি, ইটভাটা হতে আদায়কৃত কর (ভাটা প্রতি ৫০ হাজার টাকা), ট্রেড লাইসেন্স প্রদানের হিসাব, জন্ম নিবন্ধন ফি‘র হিসাব ও হোল্ডিং কর আদায়ের হিসাবসহ অনেক আদায়ের হিসাব গোপন করে আতœসাৎ করেন। কাবিখা, কাবিটা ও টিআর প্রকল্পে সকলের অজান্তে প্রকল্প সভাপতি বানিয়ে জোর পূর্বক বিল ভাউচারে স্বাক্ষর গ্রহণ করে বিল তুলে তা আতœসাৎ করেন। এছাড়াও চলতি মাসসহ গত ২৪ মাস যাবত পরিষদে ফান্ড থাকার পরও ইউপি সদস্যদের সম্মানী ভাতা প্রদান করেন নাই । এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান মোঃ মোকাররম হোসেন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, অভিযোগ কারীরা তাদের অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তবে অভিযোগকারীদের মধ্যে ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ কামরুজ্জামান শাহ বলেন, চেয়ারম্যান একজন দূর্নীতিবাজ। আনিত অভিযোগ প্রত্যাহরের কোন কারণ নেই। আমরা এর সঠিক তদন্ত ও বিচার চাই । চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম রব্বানীর কাছে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।