(দিনাজপুর২৪.কম) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আসামি পাহারা দিতে গিয়ে দায়িত্বরত অবস্থায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মোহাম্মদ হোসাইন (৪৫) নামে এক পুলিশ কর্মকর্তা মারা গেছেন।

মোহাম্মদ হোসাইন কর্ণফুলী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই)। তিনি ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার কসবা থানার মৃত আবদুল গণির ছেলে। তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে বলে জানা গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানায়, শুক্রবার রাত ৮টায় চমেক হাসপাতালে দায়িত্ব পালনের জন্য যান কর্ণফুলী থানার এএসআই মোহাম্মদ হোসাইন।

কর্ণফুলী থানায় গ্রেফতারকৃত নিয়মিত আসামি ভর্তি ছিলেন চমেক হাসপাতালে। আসামির তদারকির জন্য দায়িত্ব পালনকালে হোসাইন এর বুকে ব্যথা অনুভূত হয়।

পরে তাকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মোহাম্মদ হোসাইনের সহকর্মীরা জানান, এর আগেও তিনি কয়েকবার ব্যথা অনুভব করেন। পরে তা স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ায় তিনি সেভাবে আমলে নেননি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কর্ণফুলী থানার ওসি (তদন্ত) হাসান ইমাম বলেন, দায়িত্ব পালনকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ হোসাইন মারা গেছেন।

শুক্রবার রাত ৮টায় নিয়মিত আসামিদের ভর্তিজনিত কারণে দায়িত্ব পালনের জন্য চমেক হাসপাতালে গিয়েছিলেন তিনি।

থানার পুলিশ সদস্য মো. রফিক জানান, এএসআই মোহাম্মদ হোসেন অত্যন্ত ভালো লোক ছিলেন।

শনিবার ১০টা ৪৫ মিনিটে পুলিশ লাইনে তার প্রথম নামাজের জানাজা হয়। পরে গ্রামের বাড়ি ব্রাক্ষণবাড়িয়া নেয়া হবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।-ডেস্ক