(দিনাজপুর২৪.কম) বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগের (বিপিএল) লাকি অধিনায়ক কে? চার আসরে তিন শিরোপা হাতে তোলা মাশরাফি বিন মুর্তজাই তো। বিপিএলের প্রথম দুই আসরে ঢাকা গ্লাডিয়েটর্সের হয়ে দুই বার এরপর তৃতীয় আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে চ্যাম্পিয়ন করে টানা তিনবার শিরোপা হাতে নিয়ে উৎসবে মেতেছিলেন তিনি। কিন্তু কুমিল্লার হয়ে চতুর্থ আসরে ছিলেন মলিন। এবার নতুন মালিকানায় নতুন রূপে রংপুর রাইডার্সকে শিরোপা জেতাতে চান দেশের সেরা এই অধিনায়ক। গতকাল মাশরাফি আনুষ্ঠানিক ভাবে চুক্তি করেন রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘রংপুরকে নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই। রিলাক্স থেকে খেলতে পারলে সব ক্রিকেটারই ভালো পারফর্ম করতে পারে। টিম ম্যানেজমেন্ট আমাদের সেই সাপোর্ট দেয়ার আশ্বাস দিয়েছে। একটি দলের ভালো সিদ্ধান্ত সব সময়ই দলের জন্য দারুণ ফল আনে। আমার রংপুরকে বেছে নেয়ার আলাদা কোনো কারণ নেই। আমি ক্রিকেট খেলছি ১৬-১৭ বছর ধরে। নিজের পেশাদারি মনোভাব থেকেই আমি খেলবো। এই দলটির ভালো পরিকল্পনা শুনেই আমি খেলতে রাজি হয়েছি। তাদের গোছানো ম্যানেজমেন্ট আমার ভালো লেগেছে। সাধ্যমতো চেষ্টা করবো পঞ্চম আসরে চতুর্থ শিরোপা জিততে।’ অন্যদিকে রংপুর রাইডার্সও মাশরাফিকে পেয়ে বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। দেশের বৃহত্তর কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ এবার রংপুর রাইডার্সকে কিনে নিয়েছে। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে মাশরাফির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান।
বসুন্ধরা গ্রুপ শুরুতে ক্লাব ক্রিকেটের দল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে কিনে নিয়েছে। এরপর মে মাসে তারা রংপুর রাইডার্সের মালিকানাও কিনে নেয়। দল হিসেবে রংপুরের তৃতীয় আসর হলেও নতুন মালিকদের জন্য এটি প্রথম আসর। আর নিজেদের প্রথম আসরেই  দেশের সেরা অধিনায়ক মাশরাফিকে পেয়ে দলটির পরিচালক ভীষণ খুশি। তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথমবারের মতো বিপিএলে অংশ নিচ্ছি। আমাদের গ্রুপ খেলাধুলাসহ সব কিছুতেই এগিয়ে যেতে চায়। বিপিএলেও রংপুর রাইডার্সকে নিয়ে আমাদের এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন। মাশরাফির মতো ক্রিকেটারকে আমরা আইকন হিসেবে পেয়ে আমরা ভীষণ আনন্দিত। সে সত্যিকারের একজন গেম চেঞ্জার। আমি আশাবাদী মাশরাফি আমাদের এই দলকে ভালো কিছুই উপহার দিবে।’
গতবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ফ্রাঞ্চাইজি মালিকদের সঙ্গে কিছু ঝামেলা হয়েছিল মাশরাফির। এ নিয়ে ফলাও করে সংবাদও এসেছিল। তবে সম্পর্কের টানাপড়েনের কারণেই দল-বদল নয় বলে জানালেন বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে যে কোনো দলেই খেলতে পারি। আর এটা নতুন কিছু নয়। ক্লাব ক্রিকেটে ১৬-১৭ বছর খেলছি। সেখানেও একেকবার একেক দলে খেলেছি। এটা বোঝাপড়ার ব্যাপার। বোঝাপড়া প্রথমদিনই হতে পারে। আবার এমনও হতে পারে দিনের পর দিন খেলে যাচ্ছেন বোঝাপড়া হচ্ছে না।’
শুধু পেশাদার ক্রিকেটার বলেই নয়, মাশরাফি প্রধান্য দিয়েছেন রংপুরের কোচিং স্টাফ দলকেও। বেশ কিছুদিন আগেই অস্ট্রেলিয়ান টম মুডিকে কোচ হিসেবে নিযুক্ত করেছে রংপুর। সব মিলিয়ে দলটির উপর ভরসা রাখতে পেরেছেন মাশরাফি, ‘এখানে ফাহিম স্যার আছেন, রফিক ভাই থাকবেন। বিশ্বের সেরা একজন কোচ টম মুডি থাকছেন। আশা করছি শুরু থেকেই ভালো করতে পারবো।’ অনেক দিন থেকেই মাশরাফিকে দলভুক্ত করতে মুখিয়ে ছিল রংপুর কর্তৃপক্ষ। শেষ পর্যন্ত তাকে দলে নিতে পেরেছে দলটি। আগে থেকেই তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল বলে জানান মাশরাফি। তাদের পরিকল্পনা পছন্দ হয়েছে বলেই দলে যোগ দিতে ইচ্ছুক হন তিনি। বিপিএলের শেষ দুই আসরে একাদশে চারজন করে বিদেশি খেলোয়াড় খেলার নিয়ম ছিল। তবে এবারের আসরে খেলতে পারে প্রথম দুই আসরের মতো পাঁচজন বিদেশি খেলোয়াড়। আলোচনায় থাকলেও বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত নয়। তবে বিদেশি পাঁচজন খেললেও শেষ পর্যন্ত স্থানীয় বা দেশীয় ক্রিকেটাররাই তুরুপের তাস হতে পারে বলে মনে করছেন মাশরাফি। -ডেস্ক