(দিনাজপুর২৪.কম) খ্যাতনামা ফ্যাশন ফটোগ্রাফার চঞ্চল মাহমুদের ক্যামেরাতেই প্রথম ফ্রেমবন্দী হয়েছিলেন মৌসুমী। এরপর তিনি বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হন। আর চলচ্চিত্রে কাজের পর তার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। এরইমধ্যে নায়িকা তার চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারের পঁচিশ বছর অতিক্রম করেছেন। কিন্তু নিজেকে মিডিয়ার পথে এগিয়ে নেয়ার উৎসাহ হিসেবে চঞ্চল মাহমুদের তোলা প্রথম সেই ছবির কথা ভোলেননি মৌসুমী। তিনি সারাজীবন চঞ্চল মাহমুদের কাছে কৃতজ্ঞ। সম্প্রতি মৌসুমী-ওমরসানীর নিমন্ত্রণে চঞ্চল মাহমুদ ও তার সহধর্মিনী রায়না মাহমুদ এক ঘরোয়া আড্ডায় বসেছিলেন। অনেক না বলা কথাই সেদিন উঠে আসে তাদের আলাপচারিতায়। দুজনই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলেন। চঞ্চল মাহমুদ বলেন, ‘মৌসুমীর মতো শাবনূর, পপিরও ছবি আমার ক্যামেরাতেই প্রথম তোলা। এসব আজ কেবলই স্মৃতি। মৌসুমী অনেক অনেক ভালো মনের একজন মানুষ। তার আত্মাটা অনেক বড়। আমার সঙ্গে এখন খুব কমই দেখা হয়। কিন্তু কোনো অনুষ্ঠানে দেখা হলে সে পা ছুঁয়ে আমাকে সালাম করতে ভোলে না। আমার প্রতি তার শ্রদ্ধাবোধ দেখে আমি সবসময়ই বাকরুদ্ধ হয়ে যাই। প্রথম যেদিন মৌসুমী গাড়ি কিনেছিলো, মনে আছে সেদিনই তার গাড়িতে করে আমাকে নিয়ে ঘুরেছিলো। দোয়া করি মৌসুমী স্বামী, সন্তানদের নিয়ে যেন সুখে থাকে।’ মৌসুমী বলেন, ‘চঞ্চল ভাই এদেশের কিংবদন্তি একজন ফটোগ্রাফার। তার ক্যামেরায় নিজেকে প্রথম দেখেছিলাম। সেই স্মৃতি এখনো উজ্জ্বল। প্রায় বিশ বছর পর চঞ্চল ভাইয়ের সঙ্গে এমন সময় কাটালাম। কী যে ভালো লেগেছে তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। দোয়া করি আল্লাহ তাকে সুস্থ রাখুন।’-ডেস্ক