মো. নুরুন্নবী বাবু  (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ৫০শর্য্যায় উন্নীত হাসপাতালটির নির্মাণ কাজ ৫ বছরেও সমাপ্ত হয়নি। হাসপাতালের পুরাতন এক্স-রে মেশিন ও অ্যাম্বুলেন্সটি দীর্ঘদিনও মেরামত করা হয়নি। ডাঃ সংকটে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। ফলে রোগীরা তাদের নিয়মিত সঠিকভাবে চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না দেখার কেউ নেই। জানা যায়, ২০১০ সালে ৫০ শর্য্যায় ৩ তলা বিশিষ্ট্য সাড়ে ৯ কোটি টাকা বরাদ্দ ব্যায়ে নতুন হাসপাতালের কাজ শুরু করে। হাসপাতালের কাজ শেষ না হতেই ঠিকাদার নির্মাণ কাজ ফেলে রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যায়। পরে ঠিকাদারের ১ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়। হাসপাতালটি অধ্যবধি পর্যন্ত অসমাপ্ত অবস্থায় মূখথুবড়ে পড়ে আছে। নতুন হাসপাতালের পার্শ্বে পুরাতন ৩০ শর্য্যায় বিশিষ্ট্য হাসপাতালটির ৮জন ডাক্তার থাকার কথা থাকলেও সেখানে ৪ জন ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা হচ্ছে। এতে করে রুগীদের চরম দূর্ভোগসহ রোগীরা সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। হাসপাতালে পুরাতন একটি এক্সে-রে মেশিন ও অ্যা¤ু^লেন্সটি দীর্ঘদিন থেকে অকেজো হয়ে পড়ে আছে। মুমুর্ষ ও অপারেশনের রুগী ঘোড়াঘাট থেকে রংপুর ৬০ কিলোমিটার দূরত্ব যাওয়ার পথে অনেক রুগী মারা যায়। এছাড়াও হাসপাতালে কোয়াটার গুলি অকেজো হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি হলেই ছাদ চুয়ে পানি পড়ে, ডাক্তার ও নার্সদের বসবাস অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।