(দিনাজপুর২৪.কম) সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই কাঠগড়ায় বলিউড ইন্ডাস্ট্রি। বলিউডের ‘মুভি মাফিয়া’দের আক্রমণ করে একের পর এক মন্তব্য করেই যাচ্ছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত।

শুধু কঙ্গনা একাই নন, নেটদুনিয়ার একাংশও ভারতীয় বিনোদন জগতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঝাড়ছেন। গ্ল্যামার জগতের মাদক যোগ নিয়ে এরইমধ্যে সামনে আসতে শুরু করেছে জানা-অজানা নানা তথ্য। তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

সম্প্রতি এসব নিয়ে মুখ খুললেন বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী জয়া বচ্চন। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজ্যসভায় চলচ্চিত্র জগতের সম্মানহানি প্রসঙ্গে কথা বলার অনুমতি চান সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন।

জয়া বলেন, “কিছু মানুষেরর বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল উঠেছে বলে একটা গোটা ইন্ডাস্ট্রিকে অপমানিত করা যায় না। আমি গতকাল দেখলাম লোকসভায় বলিউডের সঙ্গে জড়িত একজনই কাজটা করলেন। অত্যন্ত লজ্জাজনক বিষয়টা।

সংবাদমাধ্যম নিউজ এইটিন জানাচ্ছে, মঙ্গলবার সকালে জিরো আওয়ারে রাজ্যসভায় বিনোদন জগত নিয়ে কথা বলার অনুমতি চান জয়া। তাঁকে কথা বলার অনুমতি দেন বেঙ্কাইয়া নাইডু। জয়া বলেন, “গোটা ইন্ডাস্ট্রিটাকে এখন নর্দমার সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে। যারা এখান থেকে উঠে এসেছেন তাঁরাই এ কাজ করছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলোধনা করা হচ্ছে বলিউডের নামকরা ব্যক্তিদের। অথচ দেশের সর্বোচ্চ করদাতারা আসেন এই ইন্ডাস্ট্রি থেকেই। আমি আশা করি সরকার এই ধরনের মানুষকে তাঁদের ভাষা ব্যবহারের বিষয়ে সতর্ক করবে।” জয়া কটাক্ষ করে বলেন, এটা আসলে যে থালায় খাওয়া সেই থালারই বদনামের মতো।

রবি কিষাণকে যেমন এক হাত নিয়েছেন তেমনই জয়া প্রশংসা করেছেন এনসিবির তৎপরতারও। তিনি বলেন, “আমি চাই সত্ত্বর ধরা পড়ুক অপরাধীরা। ”

শ্রীমতি বচ্চনের মেজাজ এদিন শুরু থেকেই ছিল রণং দেহি। তিনি বলেন, “আসলে দেশের অর্থনীতি ও কর্মসংস্থান থেকে নজর সরাতেই এই ধরনের মন্তব্য করা হচ্ছে। জয়ার মতে, প্রত্যক্ষ ভাবে অত্যন্ত ৫ লক্ষ লোক কাজ করে বলিউডে। আর পরোক্ষ ভাবে ৫০ লক্ষ। দেশের এই অর্থনৈতিক পরিস্থিতি থেকে নজর ঘোরাতে, এই ৫০ লক্ষ লোককেই অপমানিত করা হচ্ছে।”

রবি কিষাণের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে, তিনি সংবাদ মাধ্যমের সামনে বলেন, “হ্যাঁ সকলেই ড্রাগ নেয় না ঠিকই তবে যারা এই কাজে জড়িত তারা গোটা ইন্ডাস্ট্রিটাকেই ধ্বংস করছে। আমি আশা করেছিলাম জয়া বচ্চন আমায় সমর্থন করবে।”

প্রসঙ্গত মাদক কাণ্ডে ২৮ বছর বয়সি অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করেছে নার্কোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো। মাদক যোগ রয়েছে সন্দেহে আরও বহু হেভিওয়েট অভিনেতাদের শমন পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। -ডেস্ক