(দিনাজপুর২৪.কম)রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে দুর্বৃত্তরা পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেনকে (২৫) কুপিয়ে হত্যা করেছে। পুলিশ এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে শহর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান আহম্মেদ ওরফে আকাশকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে।
নিহত জাহাঙ্গীর শহরের আলিমদ্দিন পাড়ার ইসমাঈল মোল্লার ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শী, থানা-পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত সোয়া নয়টার দিকে গোয়ালন্দ বাজার থেকে উপজেলা তরুণ লীগ সভাপতি মো. তুহিন দেওয়ানসহ মোটরসাইকেলে বাসায় যাচ্ছিলেন জাহাঙ্গীর। কামরুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজের সামনে পৌঁছামাত্র আগে থেকে ওত পেতে থাকা দুর্বৃত্তদের একজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারলে সঙ্গীসহ জাহাঙ্গীর মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়েন। পরে তারা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জাহাঙ্গীরকে গুরুতর জখম করে। তুহিনকেও কোপ দিলে তিনি দৌড়ে পালিয়ে যান। এ সময় ব্যক্তিগত গাড়ি যোগে যাওয়ার সময় উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম মণ্ডল ও পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম ঘটনাটি দেখে গাড়ি থেকে নেমে পড়েন। এ সময় দুর্বৃত্তরা পালানোর সময় একটি ধারালো চাকুসহ ইমরান আহম্মেদ আকাশকে হাতেনাতে আটক করে তারা পুলিশে দেন। পরে স্থানীয় লোকজন দ্রুত জাহাঙ্গীর ও তুহিনকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত সাড়ে দশটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহাঙ্গীরকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম নাসির উল্লাহ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক ইমরান আহম্মেদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

ডোবা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার
এদিকে গোয়ালন্দ ঘাট থানা-পুলিশ গতকাল সোমবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লি সংলগ্ন একটি নর্দমার ডোবা থেকে মো. হানিফ বিশ্বাস (২৭) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে। তার নামে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় তিনটি হত্যাসহ সাতটি ডাকাতি ও ছিনতাই মামলা রয়েছে। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরেই হানিফ নিখোঁজ ছিল। তবে এ ব্যাপারে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি।(ডেস্ক)