(দিনাজপুর২৪.কম) নারীরা হচ্ছেন বিশ্বের জনগোষ্ঠির অর্ধেক, তাই সামগ্রিক উন্নয়ন পরিক্রমার স্বার্থেই নারী ক্ষমতায়নের গুরুত্ব অপরিসীম। বলার অপেক্ষা রাখে না, বাংলাদেশ আজ নারী ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে গোটা বিশ্বেই অনন্য উদাহরণে পরিণত হয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশি মালিকানাধীন আমেরিকার খ্যাতনামা আইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পিপল অ্যান্ড টেক আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেছেন ভয়েস অব আমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান রোকেয়া হায়দার। শনিবার ওয়াশিংটন ডিসি সংলগ্ন ভার্জিনিয়ায় একটি জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সংগঠনটি।

পিপল অ্যান্ড টেক থেকে আইটি কোর্স করে মার্কিন আইটি কোম্পানিতে উচ্চ বেতনে চাকরি পেয়েছেন এমন ১২ বাংলাদেশি প্রবাসী নারী অনুষ্ঠানে নিজেদের অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করেন। এরা হলেন শাহানাজ ফারুক, শিমা খান, ফারজানা ক্লারা, নুসরাত চৌধুরী, মহসিনা রিমি,  কাজল রুনি, রেহানা পারভীন, তানিয়া আকতার, আয়েশা আকতার, উমা মেরি, বেবি বিউটি প্রমুখ।

নারী দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠানে পিপল অ্যান্ড টেকের পক্ষ থেকে তিন নারীকে স্কলারশিপ দেয়া হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশের মিতু মকোটি ও তামান্না শারমীনও রয়েছেন। অন্য জন আফগানিস্তানের মারিয়াম আল মজিদ। প্রত্যেকে চার হাজার করে মোট ১২ হাজার ডলারের স্কলারশিপ পেয়েছেন তারা।

পিপল অ্যান্ড টেক আইটি প্রশিক্ষণের পাশাপাশি চাকরির ব্যবস্থা করে। প্রতিষ্ঠানটির প্রেসিডেন্ট ফারহানা হানিপ বলেন, নারী ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে এই প্রবাসেও আমরা নানাভাবে কাজ করছি। বাংলাদেশ থেকে আসা উচ্চ শিক্ষিত নারীদের আইটি শিক্ষা দিচ্ছি মার্কিন মুল্লুকে উচ্চ বেতনে চাকরির লক্ষ্যে। অনেকে চাকরি পেয়ে স্বপ্ন পূরণের পথে এগুচ্ছেন। আজ এ অনুষ্ঠানে তেমন ১২ নারী উপস্থিত হয়েছেন। তারা অন্যদের অনুপ্রাণিত করবেন বলে আশা করছি।

অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক আয়োজন দিয়ে। এতে সংগীত পরিবেশন করেন নাফিসা নওসিন ও ভিক্টোরিয়া হো। বাংলাদেশি ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ইথিওপিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের অনেকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ।  -ডেস্ক