(দিনাজপুর২৪.কম)‘বেআইনিভাবে’ সাভারের আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার একটি কারখানায় ১২১ জন শ্রমিককে চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদ ও আইনানুগ পাওনা পরিশোধের দাবিতে গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শ্রমিকরা। এ সময় তারা কারখানাটির ১০ ধরনের অনিয়মের তথ্য তুলে ধরেন।

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন আয়োজিত ঐ বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন। শ্রমিক নেতারা বলেন, অতীতে কারখানার শ্রমিকরা আইনানুগ সব ধরনের সুবিধা ভোগ করতেন। কিন্তু গত অক্টোবর থেকে হঠাত্ করে বাত্সরিক ছুটির টাকা না দেওয়া, জোর করে রাতে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানো, অতিরিক্ত কাজের সময়ের জন্য দেওয়া টিফিন বন্ধ করাসহ কিছু অনিয়ম শুরু করেন। শ্রমিকরা পূর্বের সুবিধা বহালের দাবি জানালেও কর্তৃপক্ষ তা পূরণ করেনি।

উপরন্তু গত ডিসেম্বরে ১২১ জন শ্রমিককে কারখানার কাজ থেকে বিরত রেখেছে। তাদের ক্ষতিপূরণ কিংবা বেতন-ভাতাও পরিশোধ করা হয়নি। এছাড়া কারখানাটিতে শ্রমিকদের অতিরিক্ত সময়ে কাজ করানোর জন্য টাকা পরিশোধ না করা, টিফিন বন্ধ করে দেওয়া ও খাবারের জন্য সময় না দেওয়া, নারী শ্রমিকদের মাতৃত্বকালীন ছুটির টাকা পরিশোধ না করা, নারী শ্রমিকদের জোরপূর্বক সকাল ৮টা থেকে পরের দিন সকাল ৮টা পর্যন্ত কাজ করানো, শ্রমিকদের শারীরিক নির্যাতন করা, বহিরাগত মাস্তান দিয়ে শ্রমিকদের ভয়-ভীতি দেখানো এবং অসুস্থতাজনিত ছুটি না দেওয়ার মতো গুরুতর অভিযোগও আনেন তারা। সমাবেশে শ্রমিক নেতারা চাকরিচ্যুত ইউফোরিয়া অ্যাপারেলসের ১২১ শ্রমিককে চাকরিতে পুনর্বহাল করা এবং আইনানুগ পাওনা পরিশোধের দাবি জানান। কারখানাটিতে ১ হাজার ৮০০ শ্রমিক কাজ করতেন। সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আরিফা আক্তার, একতা গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, শ্রমিক নেত্রী সাফিয়া পারভীন, রফিকুল ইসলাম রফিক প্রমুখ।-ডেস্ক