-সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস উল্টে খাদে পড়ে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। শনিবার ভোর সাড়ে ৩টার দিকে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কে উপজেলার বালুয়া (জুম্মারঘর) এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। হাইওয়ে পুলিশ জানান, ঢাকা থেকে কুড়িগ্রামের বুড়িমারীগামী বরকত এন্টারপ্রাইজের একটি নৈশকোচ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বালুয়া জুম্মারঘর নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে উল্টে গেলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও দুজনের মৃত্যু হয়। এতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন।

শনিবার ভোর ৪টার দিকে কালিতলা এলাকায় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন।

পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও দুজনের মৃত্যু হয়। এসময় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ বাসযাত্রী। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাড়ির দ্রুত গতির কারণেই দুর্ঘটনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

আরো দেখুন: ঢাকায় সড়ক কেড়ে নিলো তিন শিক্ষার্থীকে

শুক্রবার, সরকারী ছুটির দিন। রাস্তাঘাট ফাঁকা। দুই বন্ধু নোমান ও তুহিন এই ছুটির দিনে বাইক নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছিলো। ফাঁকা রাস্তায় তাদের গতিটাও ছিলো একটু বেপরোয়া। এই বেপরোয়া গতিই কেড়ে নেয় তাদের জীবন।

খিলগাঁও ফ্লাইওভারের বাসাবো ঢালে মোটর সাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ছিটকে পড়ে রোড ডিভাইডারের উপর। একই দিনে রাজধানীর ডেমরা-রামপুরা রোডে বেপরোয়া বাস কেড়ে নেয় ইরাম নামের অপর এক কলেজ ছাত্রের লাশ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ডেমরা এলাকায় ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। শিক্ষার্থীরা রাস্তায় অবরোধ সৃষ্টি করে যানবাহন ভাংচুর করে। এভাবেই রাস্তায় একে এক পিষে মরছে মানুষ। সম্প্রতি এক গবেষণা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে গড়ে প্রতিদিন ১৪ জন প্রাণ হারাচ্ছে রাস্তায়। -ডেস্ক