(দিনাজপুর২৪.কম) গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় দুইটি পৃথক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত হয়েছেন। আহত হন অন্তত ১৯ জন। শনিবার উপজেলার নুনিয়াগাড়ী ও জুনদহ এলাকায় এ দুই দুর্ঘটনা ঘটে। গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার পরিদর্শক আবুল বাশার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সকাল ১০টার দিকে রংপুর থেকে বগুড়াগামী একটি যাত্রীবাহী বাস সরকার পাম্পের সামনে এলে সামনের চাকা পাংচার হয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিপরীতমুখী একটি যাত্রীবাহী ট্রলিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তিনজন নিহত হন এবং আহত হন ১২ জন। তাদের হাসপাতালে নেয়ার পর আরেকজনের মৃত্যু হয়।

নিহতদের মধ্যে তিনজন হলেন- নির্মাণ শ্রমিক জাকির হোসেন (২৫), খসরু মিয়া (৫৫) ও রাজু মিয়া (২৮)। আরেকজনের পরিচয় জানা যায়নি। এরা সবাই গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রুদ্রনগর গ্রামের বাসিন্দা। আহতদের মধ্যে চারজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং বাকিদের পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার পরিদর্শক আবুল বাশার ও পলাশবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোস্তাফিজার রহমান জানান, ঢাকা থেকে রড নিয়ে একটি ট্রাকটি রংপুর যাচ্ছিল। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জুনদহ এলাকায় ট্রাকটি একটি বাইসাইকেলকে পাশ কাটাতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। “এতে মহিলাসহ ট্রাকের সাত যাত্রী ঘটনাস্থলে নিহত হন।” আহত আট জনকে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন উদ্ধার কাজ চালায়। কম ভাড়ায় দিনমুজুররা এই ট্রাকের যাত্রী হয়ে ঢাকা থেকে নীলফামারী আসছিলেন বলে ধারণা পুলিশের।তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। -ডেস্ক