সংগৃহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) বন্দুকের জন্য লাইসেন্স পেতে হলে অবশ্যই গো-ভক্তি থাকতে হবে। এর প্রমাণ হিসেবে গরুর জন্য ১০টি কম্বল দান বা কোনো গো-শালায় ৩ দিনের খাবার সরবরাহ করতে হবে।

ভারতের মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ভূপালের গোয়ালিয়র কর্তৃপক্ষ এ নিয়ম জারি করেছে। গত সপ্তাহে এই নতুন নিয়ম চালু করা হয়। গোয়ালিয়রে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সব সময়ই বাজে থাকে। সাথে আছে বন্য প্রাণির উৎপাত। ওখানে ভাত-কাপড় আর বাসস্থানের মতো প্রায় সব মানুষের জন্যই সঙ্গে বন্দুক রাখা জরুরি।

আবার ওই এলাকার মানুষজনও খুব বিত্তিশালী নন। ফলে তাদের অনেকের জন্য একটা বন্দুক রাখতে গিয়ে লাইসেন্স ফি, বন্দুকের দাম এবং ১০টি কম্বলের দাম জোগাড় করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

১০টি কম্বল দিতে অপারগদের জন্য কিছুটা সহজ নিয়ম হিসেবে চালু করা হয়েছে তিনদিনে গো-শালায় খাবার সরবরাহের বিষয়টি।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত এক সপ্তাহে ১৭০০ কম্বল জমা হয়েছে গোয়ালিয়র কর্তৃপক্ষের কাছে। ১৭০ জন লোক লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছেন।

গোয়ালিয়রের সংগ্রাহক অনুরাগ চৌধুরী জানিয়েছেন, কিছু লোক কম্বল দিতে না পারায় গো-শালায় খাবার দিতে চেয়েছেন। আবার কিছু লোক খাবারও দিতে অক্ষম হওয়ায় তারা কয়েকদিন গো-শালায় কাজ করতে চেয়েছেন। আবার এমন কয়েকজনও আছেন যারা কিছু খাবার দিয়ে এবং কয়েকদিন গো-শালায় কাজ করে পুষিয়ে দিতে চেয়েছেন।

তিনি জানান, গোয়ালিয়রে দুটি গো-শালায় ১২ হাজারের মতো গরু রয়েছে। এসব গরু রাস্তায় ঘোরাঘুরি করলে নানান সমস্যা তৈরি করে। এর মধ্যে রয়েছে সড়ক দুর্ঘটনা। -ডেস্ক