(দিনাজপুর২৪.কম) খেলার ময়দানে মৃত্যু, নতুন কোনো ঘটনা নয়। আরেকটি হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা ঘটল। ফুটবল মাঠে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন নাইজেরিয়ার খেলোয়াড় চিয়েমে মার্টিনস। দেশটির শীর্ষ লিগের ক্লাব নাসারাওয়া ইউনাইটেডের হয়ে খেলতেন তিনি।

রোববার নাইজেরিয়ান পেশাদার লিগে কাতসিনা ইউনাইটেডের মুখোমুখি হয় মার্টিনসের দল। ম্যাচে তখনও গোল আসেনি। ঠিক সেই সময় প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের সঙ্গে ধাক্কা লাগে তার। এতে আহত হন তিনি। তবে আঘাতটা গুরুতর ছিল।

ফলে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মার্টিনস। তবে দুর্ভাগ্য তার। তাকে চটজলদি হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারেননি মাঠকর্মীরা। কারণ তাদের অ্যাম্বুলেন্স অকেজো ছিল। শেষমেষ সংবাদকর্মীদের গাড়িতে করে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। কিন্তু ততক্ষণে বড্ড বিলম্ব হয়ে যায়। সেখানে পৌঁছানো মাত্রই দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যদিও শেষ অবধি খেলার লড়াইয়ে জিতেছে মার্টিনসের দল। দাপুটে জয় তুলে নিয়েছে নাসারাওয়া। কাতসিনাকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছেন তারা। তবে তার মৃত্যুর খবরে জয়ের আনন্দ ফিকে হয়ে যায়। এ দুঃসংবাদ শুনে মাঠেই কান্নায় ভেঙে পড়েন সতীর্থরা।

তবে ফুটবল মাঠ থেকে চিরতরে না ফেরার দেশে পাড়ি জমানোর ঘটনা এটিই প্রথম নয়। এর আগে মাঠের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ম্যানচেস্টার সিটির ক্যামেরুনের মিডফিল্ডার মার্ক-ভিভিয়েন ফো। ২০০৩ সালে কনফেডারেশনস কাপের সেমিফাইনালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে খেলতে নেমে ওপারে গমন করেন তিনি।

২০০৭ সালে লা লিগায় গেটাফের বিপক্ষে খেলতে নেমে হৃদরোগে আক্রান্ত হন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার আন্তোনিও পুয়ের্তা। পরে ড্রেসিংরুমে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। স্কটিশ ক্লাব মাদারওয়েলের হয়ে খেলতে নেমে একইভাবে করুণ মৃত্যু হয় ফিল ও’ডোনেলের।-ডেস্ক

তথ্যসূত্র: গোল ডটকম/প্রিমিয়াম টাইমস নাইজেরিয়া।