(দিনাজপুর২৪.কম) ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মামলার রায় নিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করা হলে কঠোর হাতে দমন করা হবে। ২০১৪-১৫ সালের সহিংসতার পুনরাবৃত্তি করতে দেওয়া হবে না। আজ মঙ্গলবার দুপুরে অমর একুশে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে বাংলা একাডেমি এলাকা পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, দেশের কোনো নাগরিক আইনের ঊর্ধ্বে নয়। কেউ যদি আইন ভঙ্গের চেষ্টা করে, জননিরাপত্তা বিঘ্নিত হয় এমন কোনো কর্মকাণ্ড করে, তবে তা কঠোর হাতে দমন করা হবে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তিনি বলেন, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ নিয়ে কারো শঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই।
একুশে গ্রন্থমেলায় সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানতে পারে এমন কোনো বই প্রকাশ করা যাবে না বলে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, লেখক প্রকাশকদের অনুরোধ জানিয়েছি, সাম্প্রদায়িক উসকানি দিতে পারে বা ধর্মীয় আবেগে আঘাত দিতে পারে এমন বই বাজারজাত করবেন না। আমাদের গোয়েন্দারা রয়েছে, বাংলা একাডেমির কর্তৃপক্ষ রয়েছে। বাংলা একাডেমির অধীনে একটি ডেডিকেটেড কমিটি করা রয়েছে এগুলো খবরাখবর রাখতে। যখনই আমাদের কাছে এ ধরনের কোনো খবর আসবে কমিটি এগুলো যাচাই-বাছাই করে দেখবে। যদি তেমন কিছু থাকে তা হলে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তিনি বলেন, লেখক প্রকাশক কারো যদি বাড়তি নিরাপত্তার প্রয়োজন হয় তা হলে আমরা বাড়তি নিরাপত্তা দেবো।
আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, লেখক প্রকাশক দর্শক পাঠক সবাই যাতে নির্বিঘ্নে আসতে পারে সেজন্য ডিএমপির পক্ষ থেকে সার্বিক ও সমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। দুটো চত্বর ঘিরে সুদঢ় নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছি। পুরো এলাকা সিসিটিভি কাভারেজের মধ্যে থাকবে। প্রবেশ ও বাইরের জন্য আলাদা আলাদা পথ থাকবে। বাংলা একাডেমিতে দুটো প্রবেশ ও একটা বের হওয়ার গেট থাকবে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তিনটা প্রবেশ পথ ও দুইটা বের হওয়ার গেট থাকবে।
মেলায় ঢুকতে হলে আর্চওয়ে গেট দিয়ে ঢুকতে হবে। মেটাল ও ফিজিক্যাল তল্লাশির মাধ্যমে সবাইকে ঢুকতে হবে। ভ্যানিটি ব্যাগ , ব্যাগপ্যাক, দাহ্য বস্তু, ধারালো পদার্থ নিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে আসা যাবে না।
তিনি বলেন, এরই মধ্যে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো কাজ শুরু করেছে। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে আমাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে সাজানো হবে। ফায়ার টেন্ডার থাকবে, সোয়াট, বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট প্রস্তুত থাকবে সর্বদা। পুরো মেলা চত্বর আমাদের ডগ স্কোয়াড দিয়ে ও এসবি সুইপিং টিম দিয়ে সুইপিং করা হবে।
তিনি আরও বলেন, দোয়েল চত্বর থেকে টিএসসি পুরো রাস্তাটি গাড়িমুক্ত থাকবে। সবাই হেঁটে উৎসবমুখর পরিবেশে মেলায় আসবেন। সব হকার উচ্ছেদ করা হবে। যেসব অফিস এ এলাকায় রয়েছে তাদের স্টিকারযুক্ত গাড়ি প্রবেশ করতে পারবে। দোয়েল চত্বর দিয়ে আসা গাড়ি জিমনেসিয়ামে পার্ক করার ব্যবস্থা থাকবে। -ডেস্ক