(দিনাজপুর২৪.কম) বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতার জন্য প্রয়োজন হলে সরকার চিকিৎসার সব ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যদি অসুস্থ হয়ে থাকেন, তার যে অসুস্থতা, তার জন্য নিয়ম অনুযায়ী প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা নেবে সরকার। সুচিকিৎসা যদি দেশে হয় তাহলে দেশে, আর বিদেশে নেয়ার দরকার হলে নিয়ম মেনে তা-ই হবে। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা কতোটা গুরুতর, সে বিষয়ে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়েই সব হবে। বিএনপি প্রধান কারাগারে রয়েছেন বলে সরকার তার সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। গতকাল রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এসব কথা জানান।

এর আগে সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চেয়ারপারসনকে চিকিৎসার জন্য জামিনে মুক্তি দিয়ে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ দেয়ার দাবি তোলেন। এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা কি টার্মিনাল ডিজিজ (দুরারোগ্য রোগ) নাকি নরমাল ডিজিজ (নিরাময়যোগ্য রোগ) সেটা দেখতে হবে। টার্মিনাল ডিজিজ হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। দেশের চিকিৎসকরা যদি বোর্ড বসিয়ে বলেন যে বিদেশে পাঠাতে হবে, তাহলে পাঠাবো। তেমন পরামর্শ এলে অবশ্যই পাঠানো হবে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া গত ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকেই নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন। তাকে মুক্ত করার জন্য আপিল প্রক্রিয়ায় রয়েছে বিএনপি। এদিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের ফলাফল প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, অন্তঃকলহের কারণে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী কোরামের পরাজয় হয়েছে বলে মনে করেন তিনি। একইসঙ্গে ২৯শে মার্চ অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও যেসব এলাকায় বিএনপি প্রার্থীরা জিতেছে, সেটাও আওয়ামী লীগের অন্তঃকলহের ফল বলে উল্লেখ করেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় এই দুই নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত আলাপ হয়েছে। আমরা মনে করি, সুপ্রিম কোর্ট নির্বাচনে আমাদের যে ফল এসেছে, তা আমাদের অভ্যন্তরীণ কর্মকাণ্ডের কারণেই হয়েছে। আমাদের সামষ্টিক কারণেই আমাদের ক্ষতি হয়েছে। এর পাশাপাশি বলবো, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে আমাদের বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারণেই বিএনপি জিতেছে। আমাদের অন্তঃকলহের ফসলই বিএনপি ঘরে তুলেছে। দলের অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসনে ওবায়দুল কাদের এ সময় ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান। বৃহস্পতিবারের নির্বাচন নিয়ে কয়েকটি গণমাধ্যম একপেশে সংবাদ পরিবেশন করেছে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা বেশিরভাগ জায়গায় জয়লাভ করেছে। কিন্তু কয়েকটি পত্রিকা এটাকে আংশিকভাবে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ-বিএনপির ফলাফল সমান দেখানোর চেষ্টা করেছে। এর আগে ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। -ডেস্ক