(দিনাজপুর২৪.কম) কুমির পানিতে ও স্থলে দুই জায়গাতেই থাকতে পারে। আকারে বিশাল হলেও চলাফেরা করে সন্তর্পণে। চুপিসাড়ে এসেই কখন শিকারকে ধরে টেনে নিয়ে যায়, কেউই টের পায় না।

এমন একটি ভয়ঙ্কর প্রাণীকে সামনে থেকে দেখলে অনেকেরই পিলে চমকে যেতে বাধ্য। কিন্তু বিপদে পড়লে সাহায্য করাই মানবিকতার সেরা নিদর্শন। যা করে দেখালেন ভারতের কর্নাটকের গুটিকয়েক কৃষক। নিজেদের প্রাণের তোয়াক্কা না করেই যারা কাদার মধ্যে ঝাঁপিয়ে বাঁচালেন বিশাল এক কুমিরকে।

ঘটনাটি ঘটেছে কর্নাটকের কুরতি গ্রামে। প্রতিদিনের মতো মাঠে কাজ করতে গিয়েছিলেন একদল কৃষক। তাদের মধ্যেই একজন হঠাৎ দেখতে পান দূরে কাদার মধ্যে কিছু একটা আটকে রয়েছে। গাছের গুড়ির মতো দেখতে হলেও মনে হল একটু যেন নড়াচড়া করছে। এলাকার নদীতে কুমিরের দেখা কমবেশি দেখতে পাওয়া যায়। এখন গরমের তাপে সে নদী প্রায় শুকিয়ে এসেছে। পাড়ে রয়েছে একহাঁটু কাদা। সেই কাদাতেই আটকে ছিল কুমীরটি। একটু কাছে যেতেই পুরো বিষয়টি পরিষ্কার হয় কৃষকদের কাছে।

দ্বিতীয়বার ভাবেননি তারা। প্রায় সঙ্গে সঙ্গে কাদার মধ্যে ঝাঁপিয়ে পড়েন। প্রথমে দুই-একবার দূর থেকে কাদা ছুড়ে দেখেন তখনও কুমিরটা সাড়া দিচ্ছে কিনা। সামান্য হলেও সাড়া মেলে। সাহস করে পিছন থেকে এক যুবক গিয়ে ধরে ফেলেন কুমিরটিকে। তারপর সবাই মিলে ধরে তাকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে আসেন। পানি দিয়ে পরিষ্কার করার পর একটু সুস্থ হলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। -ডেস্ক