(দিনাজপুর২৪.কম) কাশ্মীরে জঙ্গি হামলার পর থেকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা। জঙ্গি হামলার প্রতিশোধ নিতে ভারত নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করে পাকিস্তান ভূ-খণ্ডে আক্রমণ করে। এসময় ভারতীয় বিমান বাহিনীর দুটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে এক পাইলটকে পাকিস্তান আটক করে। এরপর দু’দেশের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয় এদিকে দেশ দুটির মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে এবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার অভিযোগ করেছে ভারত। বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে যৌথ সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ অভিযোগ করা হয়। ভারতে দাবি মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ও বুধবার দুই দেশের হামলা পাল্টা হামলার সময় এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়। নয়াদিল্লিতে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী এই ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে। এতে ভারতের এয়ার ভাইস মার্শাল আরজিকে কাপুর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে। এসময় আরজিকে কাপুর জানান, পাকিস্তান ভারতের ভূখণ্ডে অ্যাডভান্সড মিডিয়াম-রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল ব্যবহার করেছে। তিনি অ্যাডভান্সড মিডিয়াম-রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার মিসাইলের কিছু ধ্বংসাবশেষও দেখান। সংবাদ সম্মেলনে একটি এঅ-১৬ যুদ্ধবিমানের ধ্বংসাবশেষও দেখানো হয়। পাকিস্তানের ওই বিমানটি ভারত সীমান্তে প্রবেশ করলে সেটি ভূপাতিত করা হয়। বিমানের ভাঙা অংশ ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের রাজোরিতে পড়েছিল।

এদিকে ভারত অভিযোগ করেছে, যে ক্ষেপণাস্ত্রের প্রমাণ তারা হাজির করে তা মূলত অ্যাডভান্সড মিডিয়াম-রেঞ্জ এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল বা অ্যামর‍্যাম নামে পরিচিত। এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে ভারতের মিগ-২১ বিসন যুদ্ধজাহাজটিকে ভূপাতিত করেছে তারা।  এ ক্ষেপণাস্ত্রগুলো শুধু জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হবে এমন শর্তে তা যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে পেয়েছিল পাকিস্তান। -ডেস্ক