মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

(দিনাজপুর২৪.কম) যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে ক্যাপিটল ভবনে বিক্ষোভরত সকল সমর্থকদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘আমি ক্যাপিটল ভবনের সবাইকে শান্ত থাকতে বলছি। কোন সংঘাত নয়।’

আরেক টুইট বার্তায় ট্রাম্প লিখেছেন, ‘আমাদের ক্যাপিটাল পুলিশ এবং আইন প্রয়োগকারী বাহিনীকে সমর্থন করুন। তারা সত্যি আমাদের দেশের পাশে। শান্ত থাকুন।’

এদিকে, ইতোমধ্যে ক্যাপিটল ভবনে জারি করা হয়েছে লকডাউন। এ ছাড়া ব্যাপক গোলযোগের আশঙ্কায় ন্যাশনাল গার্ড তলবের পর সান্ধ্য আইন জারি করেছেন করেছেন স্থানীয় মেয়র মিউরিয়েল বাউসার।

গত নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের বিজয় অনুমোদনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতারা বুধবার কংগ্রেসের এক যৌথ অধিবেশনে বসেন। উভয় কক্ষের এই অধিবেশনে পপুলার ভোটের ভিত্তিতে ইলেকটোরাল কলেজের দেওয়া ভোটগুলো গণনা করা হয় এবং তা চূড়ান্তভাবে প্রত্যয়ন করা হয়। অধিবেশনের কয়েক ঘণ্টা আগেই এর বিরোধিতা করে ওয়াশিংটনে জড়ো হন কয়েক হাজার ট্রাম্প সমর্থক, যাদের মধ্যে উগ্রপন্থিী বিভিন্ন গ্রুপের সদস্যরাও রয়েছেন। সেই সমাবেশে বক্তব্যে নভেম্বরের নির্বাচনে পরাজয় মেনে না নেওয়ার ঘোষণা দেন ট্রাম্প।

সমর্থকদের উদ্দেশে ট্রাম্প অঙ্গীকার করেছেন, ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হার তিনি কখনোই স্বীকার করবেন না। তিনি বলেছেন, ‘আমরা কখনোই হাল ছাড়ব না, আমরা কখনোই পরাজয় স্বীকার করব না। আমরা জালিয়াতি রুখে দেব।’

রয়টার্স বলছে, এই সমাবেশের অল্প একটু দূরে গিয়ে কয়েকশ ট্রাম্প সমর্থক ক্যাপিটল ভবনে নিরাপত্তা ব্যারিকেড ভেঙে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ান। একপর্যায়ে কংগ্রেসের অধিবেশন চলার মধ্যেই পুলিশের বাধা ভেঙে ক্যাপিটল ভবনে ঢুকে পড়েন তারা। ভবনে ধ্বংসযজ্ঞও চালানো হয়।

একপর্যয়ে টুইটারে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘ইউএস ক্যাপিটলে অবস্থানরত সবাইকে আমি শান্ত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। কোনো সহিংসতা চলবে না। মনে রাখবেন, আমরা আইনকানুন মেনে চলা দল, আইন মেনে চলুন। ধন্যবাদ।’

বিবিসির প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বিক্ষোভরত ট্রাম্প সমর্থকরা পার্লামেন্ট ভবনের সামনে দাঁড়িয়ে ‘ভোট চুরি বন্ধ করো’ স্লোগান দেওয়ার পাশাপাশি ভবনের বিভিন্ন অংশ গুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। সেখানে তাদের তাণ্ডব অব্যাহত রয়েছে। -ডেস্ক