(দিনাজপুর২৪.কম) সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে করে কোনো কূল না পেয়ে বিএনপি হেরে যাওয়ার ভয়ে নির্বাচন থেকে পালানোর পথ খুঁজছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, দেশে-বিদেশে বসে আবারো সন্ত্রাস ও নাশকতার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। ঢাকা থেকে নীলফামারী পর্যন্ত ট্রেনযাত্রা শেষে রোববার সকালে সৈয়দপুর বিমান বন্দরে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। যাত্রাপথে ১৭টি পথসভায় বক্তব্য দেন ওবায়দুল কাদের। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, বিএম মোজাম্মেল হক, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হক প্রমুখ।

কোটা আন্দোলন, ছাত্র আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি দেশকে অস্থিতিশীল করার পায়তারা করছে বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এই ট্রেনযাত্রা দেখে তারা (বিএনপি) বুঝে ফেলেছে জনগণের ভোটে তাদের ক্ষমতায় আসার কোনো সম্ভাবনা নেই।

নির্বাচনের পৌনে দুই মাস আগে দেশের কোথাও অশান্তি বা অস্থিরতা নেই উল্লেখ করে কাদের বলেন, অশান্তি, বিষেদাগার রয়েছে বিরোধী পক্ষের মধ্যে। ট্রেন যাত্রায় আওয়ামী লীগ সফল মন্তব্য করে তিনি বলেন, মানুষের এতো উচ্ছ্বাস, আনন্দ প্রমাণ করে শেখ হাসিনার প্রতি তাদের আস্থা রয়েছে।

এর আগে শনিবার সকালে ঢাকার কমলাপুর থেকে ছেড়ে যায় নীলফামারীর চিলাহাটীগামী আন্তঃনগর নীলসাগর এক্সপ্রেস। ট্রেনটিতে ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামী লীগের একাধিক সাংসদ ও কেন্দ্রীয় নেতা ছিলেন। ‘নির্বাচনী যাত্রা’ নামের এই সফরের লক্ষ্য দলীয় নেতা-কর্মীদের চাঙা করা ও সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম জনগণের কাছে তুলে ধরা।

নীলসাগর এক্সপ্রেসটি শনিবার সকাল আটটার দিকে ঢাকার কমলাপুর থেকে ছেড়ে যায়। এটির নীলফামারী পৌঁছার কথা ছিল বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে। কিন্তু ট্রেনটি রাত ৯টা ৫৬ মিনিটে নীলফামারী পৌঁছায়।

ঢাকা থেকে চিলাহাটি যাত্রায় আওয়ামী লীগ নেতারা ১৭টি পথসভায় বক্তব্য দেন। কোথাও ট্রেন থেকে নেমে মঞ্চে বক্তৃতা করেন তারা। আবার কোথাও স্টেশনে ট্রেন দাঁড় করিয়ে ওবায়দুল কাদের বক্তৃতা করেন।

সকালের সংবাদ সম্মেলনে ট্রেনের যাত্রীদের ভোগান্তি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, জনগণ কোনো দুর্ভোগ পোহায়নি। লাখ লাখ মানুষ জনসভায় যোগ দিয়েছে। বরং এই ধরনের ট্রেনযাত্রা বিএনপি করলে অনেক বিশৃঙ্খলা হতো। -ডেস্ক