-ফাইল ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) কেরানীগঞ্জে কারখানায় আগুনের ঘটনায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি সুমন দেওয়ান (২২) নামের এক শ্রমিক মারা গেছেন। এছাড়াও এ ঘটনায় দুর্জয় দাস নামের আরেকজন মারা গেছেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুর্জয়কে হাসপাতাল থেকে বাসায় নিয়ে গিয়েছিল তার পরিবার। কেরানীগঞ্জের হিজলতলা বাজারে নিজ বাড়িতে মারা যান দুর্জয়।

রোববার (১৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ৫টার দিকে মারা যান সুমন। সুমনের বাড়ি বরিশালের হিজলা উপজেলায়। বাবার নাম খলিল দেওয়ান। তিনি কেরানীগঞ্জের সুবাড্ডা উত্তরপাড়ায় থাকতেন। সুমনের বড় বাই সোহাগও (২৫) এ ঘটনায় দগ্ধ হয়ে আইসিইউতে ভর্তি আছেন।

সুমনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন বার্ন ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন।

তিনি বলেন, সুমনের শ্বাসনালীসহ দেশের ৫০ শতাংস দগ্ধ হয়েছিল। এর আগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর সাড়ে ৬টায় মুস্তাকিম, সাড়ে ৯টায় রাজ্জাক ও সাড়ে ১১টায় আবু সাঈদ মারা যান। তারা তিনজনই লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুধবার বিকেলে কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া এলাকায় প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড প্লাস্টিক কারখানায় আগুন লাগে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

এ ঘটনায় ৩২ জনকে দগ্ধ অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে ১১ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করা হয়। -ডেস্ক